হাজীগন্জে হিন্দু ছেলে মুসলিম সেজে বিয়ের প্রোলোভনে প্রেমিকাকে ধর্ষণ। 

রফিকুল ইসলামবাবু,
চাঁদপুর হাজীগন্জে রং নাম্বারে প্রেম, ঠাঁই হলো কারাগারে রং নাম্বারে পরিচয়। ৬ মাস ধরে প্রেম। ঈদ আনন্দে দেখাদেখি। দু’জনে বাড়ি থেকে বেরিয়ে আশ্রয় নেয় আবাসিক হোটেলে। ৩দিন পর জামাই আদরে প্রেমিকার বাড়িতে হাজির। তারপর হিন্দু হয়েও মুসলিম সেজে প্রতারণার দায়ে প্রেমিকের ঠাঁই হলো কারাগারে। এটি কোনো শর্ট ফিল্ম কিংবা চলচ্চিত্রের দৃশ্য নয়। এমন ঘটনা ঘটেছে চাঁদপুরের হাজীগঞ্জ উপজেলার বেলঘর গ্রামে। প্রেমিক এখন চাঁদপুর জেলহাজতে । সোমবার হাজীগঞ্জ থানা থেকে ওই প্রেমিককে ধর্ষণ ও প্রতারণার মামলায় চাঁদপুর আদালতে পাঠানো হয়েছে। আদালত তাকে জেল হাজতে পাঠিয়েছে। হাজীগঞ্জ থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. আলমগীর হোসেন রনি বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, মুসলিম সেজে প্রেমের অভিনয় করা এবং আবাসিক হোটেলে থাকার দায়ে এটি ধর্ষণ ও প্রতারণা মামলা হিসেবে নেয়া হয়েছে।
রোবিবার ঘটনাটি জানাজানি হলে প্রেমিকার মা-বাবা থানা পুলিশের আশ্রয় নেয়। ওই রাতেই প্রেমিক ও প্রেমিকাকে আটক করে পুলিশ । প্রতারক প্রেমিকের নাম পলাশ চন্দ্র দেবনাথ। সে কচুয়া উপজেলার চাঙ্গিনী গ্রামের শুকুমার রঞ্জন দেবনাথের ছেলে। এদিকে ১৯ বছর বয়সী ওই প্রেমিকা হাজীগঞ্জ উপজেলার বেলঘর বেপারি বাড়ির মজিবুর রহমানের মেয়ে।প্রেমিকা বলেন, সে হিন্দু। সে তার পরিচয় গোপন করে আমার সঙ্গে প্রেমের অভিনয় করেছে। প্রতারণা করে সে আমকে ধর্ষণ করেছে।