হাজীগঞ্জ পশ্চিম হাটিলায় বিয়ের প্রলোভনে স্কুল ছাত্রীকে ধর্ষণ

রফিকুল ইসলাম বাবু ॥ চাঁদপুর হাজীগঞ্জ উপজেলায় পশ্চিম হাটিলা ইউনিয়নে এক স্কুল ছাত্রীকে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে বিভিন্ন স্থানে নিয়ে ধর্ষণ করেছে ঐ উপজেলার এক বখাটে যুবক জুয়েল। জানা যায়, পশ্চিম হাটিলা পাটওয়ারী বাড়ির জাহাঙ্গীর আলম পাটওয়ারীর পশ্চিম হাটিলা টঙ্গিরপাড় উচ্চ বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণির ছাত্রী তানজিনা আক্তার (১৭) এর সাথে ২ বছর যাবত ঐ উপজেলার ৩নং কালচোঁ ইউনিয়নের ফিরোজপুর মুন্সী বাড়ির ফজলুল হকের ছেলে জুয়েল (২০) এর সাথে ফেইসবুকে বন্ধুত্ব হয়। স্বরলতার সুযোগ নিয়ে এসুবাধে সাথে বহুবার তানজিনার স্বাক্ষাত হয় এবং মন দেওয়া নেওয়া হয়। জানা যায়, জুয়েল বিবাহিত। ২৭ এপ্রিল জাহাঙ্গীর আলম পাটওয়ারীর মেয়েকে নিয়ে জুয়েল পালিয়ে যায়। ঐ দিনই জাহাঙ্গীর আলম পাটওয়ারী তার মেয়েকে না পেয়ে আত্মীয় স্বজনের বাড়িতে না পেয়ে বহু খোঁজাখুজি করে। একপর্যায়ে ঐদিনই হাজীগঞ্জ থানায় উপস্থিত হয়ে জাহাঙ্গীর পাটওয়ারীর স্ত্রী আছিয়া বেগম বাদী হয়ে নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে ৭/৩০ ধারায় ৩ জন আসামীর নাম উল্লেখ করে মামলা দায়ের করেন। আসামীরা হলেন-তানজিনার প্রেমিকা-জুয়েল ও তার সহযোগী মামুন, শাওন এ মামলার জের ধরে পুলিশ অভিযান চালিয়ে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে মোবাইল টেকিংয়ের মাধ্যমে হাজীগঞ্জ থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তার নির্দেশে এসআই মোশারফ হোসেন ও সঙ্গীয় পোর্স নিয়ে ২ মে হাজীগঞ্জ উপজেলা ৩নং কালচোঁ ইউনিয়নের মুন্সী বাড়ি থেকে তানজিনা আক্তার ও জুয়েলকে আটক করে। আসামী জুয়েলকে আটক করে চাঁদপুর জেলা আদালতে প্রেরন করা হলে । আদালতে তার জামিন না মঞ্জুর করে চাঁদপুর কারাগরে প্রেরণ করেন। এদিকে তানজিনাকে চাঁদপুর সদর হাসপাতালে চেকাপের শেষে চাঁদপুর আদালতে ২২ ধারা জবাববন্ধী নেয় বলে এসআই মোশারফ জানান।