হাইমচরে ৩১টি কেন্দ্রের সবগুলো ঝুঁকিপূর্ণ হিসেবে চিহ্নিত

বিশেষ প্রতিনিধি : চাঁদপুরের হাইমচর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে ৩ পদে ১৪ প্রার্থী প্রতিদ্বন্দিতা করছেন। চেয়ারম্যান পদে প্রতিদ্বনিদ্বতা করছেন ৩ জন,ভাইস চেয়ারম্যান পদে ৯ জন এবং মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে ২ জন প্রার্থী রয়েছেন।

যার মধ্যে চেয়ারম্যান পদের প্রার্থীরা হলেন আওয়ামী লীগ মনোনীত মো. নূর হোসেন পাটওয়ারী(নৌকা),বিএনপির মো. ইসাহাক খোকন(ধানের শীষ) এবং সতন্ত্র প্রার্থী মো. মোতালিব জমাদার (আনারস)।

৩১টি কেন্দ্রের সবগুলো ঝুঁকিপূর্ণ হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে। এ নির্বাচনে ৩ প্লাটুন বিজিবি,র‌্যাবের ১০টি টিম ও ৬২ জন সেনাবাহিনী মোতায়েন থাকবে বলে জেলা প্রশাসন থেকে নিশ্চিত করা হয়েছে।

৯ জানুয়ারি নির্বাচন সুষ্ঠু করতে সব রকম প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়েছে জানিয়ে মতবিনিময় করেছেন নির্বাচন কমিশনার বেগম কবিতা খানম। এ সময় তিনি বলেন,ইভিএম পদ্ধতিটি হাইমচরে নতুন হলেও ইতিপূর্বে নির্বাচন সংশ্লিষ্ট সকল কর্মকর্তাদেরকে প্রশিক্ষনের পাশাপাশি ভোটারদেরকেও ভোট প্রদানের পদ্ধতি শিখানো হয়েছে। আইন শৃঙ্খলা বাহিনী সকল প্রার্থীর প্রতি সমান আচরন প্রদর্শন করবে।

সব মিলিয়ে হাইমচর উপজেলা পরিষদ নির্বাচন উৎসবমুখর পরিবেশে অনুষ্ঠিত হবে। প্রার্থীদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, নির্বাচনে জয় পরাজয় থাকবেই। প্রত্যেক প্রার্থীকেই নির্বাচনী আচরনবিধি মেনে চলতে হবে। এদিকে খবর নিয়ে জানা যায়,১’শ ৩৪ বর্গকিলোমিটার আয়তনের হাইমচর উপজেলায় মোট ভোটার রয়েছে ৮০ হাজার ২’শ ৩৪ জন। এর মধ্যে পুরুষ ভোটার ৪১ হাজার ৪’শ ১৭ জন এবং নারী ভোটার ৩৮ হাজার ৮’শ ১৭ জন।

এই উপজেলার ৬ ইউনিয়নে ৩১ কেন্দ্রে ২’শ বুথে প্রথম বারের মতো ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনে (ইভিএম) ভোট দেবেন ভোটাররা। তবে প্রশাসনের পক্ষ থেকে ৩১ কেন্দ্রের সবগুলোকেই ঝুঁকিপূর্ণ হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে।এ ব্যপারে জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা ও রিটার্নিং অফিসার মো. হেলাল উদ্দিন খান বলেন, ৩১টি কেন্দ্রের সবগুলোকে প্রশাসন কর্তৃক ঝুঁকিপূর্ণ হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে।

তবে ইভিএম পদ্ধতি ও সুষ্ঠু পরিবেশে নির্বাচনের লক্ষ্যে সব ধরনের প্রস্তুতি আমাদের পক্ষ হতে নেওয়া হয়েছে। তাছাড়া ইভিএম-এ ভোট প্রয়োগের বিষয়ে সাধারণ ভোটারদের নিয়ে আমরা ব্যাপক কাজ করেছি। তাই নির্বাচনে আইনশৃঙ্খলা রক্ষার বিষয়ে আমরা কোনো ছাড় দেবো না। তিনি নিরাপত্তার ব্যপারে জানান,নির্বাচনে ৩ প্লাটুন বিজিবি,র‌্যাবের ১০টি টিম (প্রতি টিমে আটজন সদস্য), কোস্টগার্ড,পুলিশ এবং আনসার বাহিনীর সদস্যরা দায়িত্ব পালন করবে।

তাছাড়া চরাঞ্চলের কেন্দ্রগুলোতে পুলিশসহ বিভিন্ন ইউনিটের অতিরিক্ত ফোর্স মোতায়েন থাকবে। নির্বাচনের পরিবেশ ঠিক রাখতে প্রয়োজনীয় সংখ্যক ম্যাজিস্ট্রেটগণ দায়িত্ব পালন করবেন।এ সময় তিনি আরো জানান,ইভিএম মেশিনগুলো অপারেটিং করার জন্য ৩১টি কেন্দ্রে ২ জন করে মোট ৬২ জন সেনাবাহিনীর সদস্য দায়িত্ব পালন করবে। অর্থাৎ সুষ্ঠুভাবে ভোটগ্রহণের লক্ষ্যে সব ধরনের ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। কোনো অবস্থাতেই নির্বাচনী পরিবেশ নষ্ট করতে দেওয়া হবে না। আগামী ১৩ জানুয়ারি সোমবার হাইমচর উপজেলা পরিষদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা রয়েছে।