সুজাতপুর ডিগ্রি কলেজের একাদশ শ্রেণির নবীন-বরন অনুষ্ঠানে

                                                               বর্তমান সরকার শিক্ষিত জাতি গঠনে নিরন্তর কাজ করে যাচ্ছে
                                                                                            …………….যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধা এম এ ওয়াদুদ
স্টাফ রিপোর্টার
চাঁদপুর মতলব উত্তর উপজেলার সুজাতপুর ডিগ্রি কলেজের ২০১৯-২০ শিক্ষা বর্ষের একাদশ শ্রেণির নবীন-বরন, ওরিয়েন্টশন ক্লাশ ও অভিভাবক সমাবেশ কলেজ মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত হয়েছে।
গতকাল ১ জুলাই সোমবার সকাল ১১টায় নবীন বরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন, কলেজের প্রতিষ্ঠাতা, পরিচালনা পর্ষদের সভাপতি এবং চাঁদপুর জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদরে কমান্ডার যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধা এম এ ওয়াদুদ।
তিনি বক্তব্যে বলেন, সকলের দোয়া ও আর্শীবাদে দীর্ঘ ৪বছর পর আমার প্রাণপ্রিয় প্রতিষ্ঠানে আসতে পেরেছি। আমি দেশ ও মানুষকে ভালবাসি কারন, জাতির নেতা জাতির জনকের পদাঙ্ক অনুসরন করে এগিয়ে যাচ্ছি। তিনি শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে বলেন, ১৩ থেকে ১৯ বছর বেশ কঠিন সময় তাই তোমাদের জীবন গড়তে হলে এ কঠিন সময়কে সুন্দরভাবে পার করতে হবে। আমরাও একদিন ছাত্র ছিলাম তখন স্বপ্ন ছিল বড় হয়ে দেশের সেবা করবার। প্রতিদিন কলেজে এসে ক্লাশ করবে। নিয়মিত পড়াশুনা করবে। অভিভাবক ও শিক্ষদের সকল কথা শুনবে। সরকার তোমাদের জন্য কোটি কোটি টাকা ব্যায় করছে। তোমরা সময়কে ভাল কাজে বিশেষ করে পড়ালেখার কাজে ব্যায় করবে তা না হলে ভবিষ্যত হবে অন্ধকার। সুশিক্ষিত জাতি ছাড়া দেশ সুন্দর গড়া সম্ভব নয়। বর্তমান সরকার শিক্ষিত জাতি গঠনে নিরন্তর কাজ করে যাচ্ছে।
তিনি আরো বলেন, আমার এ প্রাণপ্রিয় শিক্ষা প্রতিষ্ঠানকে বিশ্ববিদ্যালয় কলেজে রুপান্তর করতে কাজ করে যাবো। বর্তমানে যে ভবন হয়েছে আরো একটি ভবনের জন্য চেষ্টা চলছে। অভিভাবক ও শিক্ষদের সমন্বয় থাকলে কোন শিক্ষার্থীরা বিপথে যাবে না বলে আমি মনে করি। অত্র এলাকার সকল মানুষের জন্য কাজ করছি যতদিন প্রাণ আছে তা করে যাবো।
কলেজের অধ্যক্ষ মোহাম্মদ মাসুদ পারভেজের সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন, সমাজ সেবক ও কলেজ পরিচালনা কমিটিরে সদস্য নাজমুল করিম, ইসলামাবাদ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়াম্যান ও কলেজের বিদ্যুৎসাহী সদস্য সাজেদুল হাসান বাতেন বাবু, মতলব দক্ষিণ উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ কমান্ডর মুক্তিযোদ্ধা শহীদ উল্লাহ, মতলব উত্তর উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের কমান্ডার মোফাজ্জল হোসেন, সমাজ সেবক মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল হাই, মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল মতিন চৌধুরী, মজরুজকান্দি সপ্তগ্রাম বিদ্যালয় প্রধান শিক্ষক খোরশেদ আলম, নেছারিয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক শাহাজাল, সুজাতপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সালেহা আক্তার সুজাতপুর, সুজাতপুর কিন্ডার গার্ডেনের অধ্যক্ষ নুরুল আমিন পাটওয়ারী, সহকারী অধ্যাপক সুব্রত দাস, অভিভাবক আলমগীর সরকার, অভিভাবক সদস্য জসিম প্রধান প্রমুখ।
বক্তারা তাদের বক্তব্যে বলেন, কলেজের সুনাম যেন অক্ষুন্ন থাকে সেদিকে তোমরা খেয়াল রাখবে। কলেজে থেকেই তোমাদের উচ্চ শিক্ষার স্তর তৈরি হয়। তাই কলেজ জীবনে সময় নষ্টরনা করে সুন্দর ভবিষ্যত গড়তে এখন থেকে প্রস্তুত হবে বলে আমরা আশা করি। জীবনের অভিভাবকরা অশ্যই আপনাদের সন্তানদের সার্বক্ষনিক খোজ খবর রাখেন। এ কলেজ ডিগ্রী কলেজ হয়েছে আগামীতে বিশ্ববিদ্যালয় কলেজে রুপান্তিরিত হবে।
প্রভাষক শেফালী বেগমের পরিচালনায় কলেজের পক্ষে বক্তব্য রাখেন দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্রী শেহরুবা। অনুষ্ঠানের শুরুতে পবিত্র কোরআন পাঠ করেন দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী মোঃ জুম্মান ও পবিত্র গীতা পাঠ করেন দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী ইতি রানী মল্লিক।
এ সময় উপস্থিত ছিলেন, সহকারী অধ্যাপক সুনীল চন্দ্র সরকার, সুব্রত দাস, অরুন চন্দ্র সরকার, মোঃ মেরশেদ আলম, মোঃ আতাউল্লাহ, সিনিয়র প্রভাষক হেলেনা আক্তার, ইব্রাহিম হোসেন, মোঃ ওমর ফারুক, নিজাম উদ্দিন, আফিয়া খাতুন, মোঃ বোরহান উদ্দিন, প্রভাষক মোঃ শাহীন খান, শেফালী বেগম, অমিত সিং, অমল চন্দ্র পাল, নুরুন নাহার, বিপ্লব চন্দ্র হালদার, ফাতেমাতুজ জোহরা প্রমুখ।