শুরু হয়েছে ৮ দিন ব্যাপী ১০ম ইলিশ উৎসব

মানিক দাস ॥ চতুরঙ্গ সাংস্কৃতিক সংগঠনের মহাসচিব হারুন আল রশীদ ইলিশ উৎসব করার পরিকল্পনা গ্রহণ করেন। সেই থেকে চাঁদপুরের অতীত ঐতিহ্য ইলিশ সম্পদকে নিয়ে ইলিশ উৎসবের রূপকার হারুন আল-রশীদ ইলিশ উৎসবের কাজ শুরু করেন। গতকাল ২৪ সেপ্টেম্বর থেকে জেগে উঠো মাটির টানে, প্রাণ ফুটিকস ১০ম চতুরঙ্গ ইলিশ উৎসব শুরু হয়েছে। বিকেল সাড়ে ৩টায় চাঁদপুর জেলা শিল্পকলা একাডেমি প্রাঙ্গন থেকে ইলিশ উৎসবের বণাঢ্য শোভাযাত্রা বের করা হয়। শোভাযাত্রাটি শহরের প্রধান প্রধান পদক্ষিন করে পুনরায় শিল্পকলা একাডেমি মিলনায়তনে এসে শেষ হয়।
শোভাযাত্রার পূর্বে উদ্বোধনী সংক্ষিপ্ত আলোচনা সভায় চতুরঙ্গের চেয়ারম্যান অ্যাড. বিনয় ভূষণ মজুমদারের সভাপতিত্বে ও মহাসচিব হারুন আল রশীদের সঞ্চালনায় উদ্বোধকের বক্তব্য রাখেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোঃ মিজানুর রহমান। র‌্যালির প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক সার্বিক মোঃ শওকত ওসমান। বক্তারা বলেন, ইলিশের বাড়ি চাঁদপুরে এমন ইলিশ উৎসব হবে যা থেকে সচেতনতা বৃদ্ধি পায়। আন্তর্জাতিক পর্যটক দিবস উপলক্ষে এ বছর চাঁদপুরে আন্তর্জাতিক ইলিশ উৎসব করার প্রস্তুতি নেয়া হয়েছে। ইলিশ উৎসব বিগত বছরগুলোকে ছাড়িয়ে যাবে এমনটাই প্রত্যাশা করছি। চাঁদপুর ইলিশের জন্য বিখ্যাত। এই ইলিশের কারণে চাঁদপুর বিশ্বের কাছে পরিচিত। চাঁদপুরে চতুরঙ্গ সাংষ্কৃতিক সংগঠন ১০ বছর ধরে যে ইলিশ উৎসব করে আসছে তার জন্য এই সংগঠনকে আমরা ধন্যবাদ জানাই।
এ সময় বক্তব্য রাখেন ইলিশ উৎসবের আহ্বায়ক রোটাঃ কাজী শাহাদাত, প্রাণ আরএফএল গ্রুপের কর্মকর্তা নাজমুল আহসান, কোস্ট গার্ড চাঁদপুর স্টেশন কমান্ডার লে. এম.এনায়েত উল্লাহ, কান্ট্রি ফিশিং বোর্ড মালিক সমিতির সভাপতি ও ইলিশ উৎসবের মৌলিক পার্টনার শাহআলম মল্লিক প্রমুখ। র‌্যালি ও উদ্বোধনী আলোচনা শেষে ৩য় থেকে ৭ম শ্রেণির গ্রুপ পদ্মা নদী ক্ষুদে গানবাজদের অডিশন রাউন্ড অনুষ্ঠিত হয়। এরপর ৮ম থেকে ¯œাতক শ্রেণি মেঘনা নদী সেরা গানবাজদের অডিশন রাউন্ড অনুষ্ঠিত হয়। এই রাউন্ডে যারা বিজয়ী হয়েছে তারা আগামী পহেলা অক্টোবর ফাইনাল রাউন্ডে অংশগ্রহণ করবে। এতে বিচারক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন কন্ঠশিল্পী কৃষ্ণা সাহা ও তাহমিনা হারুন।
এরপর প্রীতি বিতর্ক, সম্মাননা অনুষ্ঠিত হয়। সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান পরিবেশন করবে বাংলাদেশ শিশু একাডেমি চাঁদপুর ও রংধনু সৃজনশীল নৃত্য সংগঠন।
বিগত বছরের ন্যায় হারুন আল রশীদ এ বছরও প্রাণ আরএফএল চতুরঙ্গ সাংষ্কৃতিক সংগঠন ইলিশ উৎসবের মাধ্যমে ১২ জন গুণী ব্যক্তিকে এ বছরও চতুরঙ্গ পদক প্রদান করবেন। ১১ জনকে বিশেষ সম্মাননা পদক প্রদান করা হবে। ১০ম ইলিশ উৎসবে চতুরঙ্গ পদক পাচ্ছেন যারা তারা হলেন, আগরতলার ত্রিপুরার সাংস্কৃতিক সংগঠক অমিত ভৌমিক, চাঁদপুরের কৃতি সন্তান আগরতলার জনপ্রিয় কন্ঠশিল্পী ড. উত্তম সাহা সাগর, বাফা’র সভাপতি হাসানুর রহমান বাচ্চু, আগরতলা ত্রিপুরার আবৃতি শিল্পী শাওলি রায়, আগরতলা ত্রিপুরার কন্ঠশিল্পী সর্বানী দাশ দত্ত, সনাক চট্টগ্রামের সভাপতি প্রকৌশলী দেলোয়ার হোসেন, চাঁদপুর প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক মির্জা জাকির, সম্পাদক ফোরাম চাঁদপুরের সাধারণ সম্পাদক রোকনুজ্জামান রোকন, মুক্তিযোদ্ধা শাহাবুদ্দিন মজুমদার, জাতীয় নৃত্য প্রশিক্ষক আমিরুল ইসলাম মনি, দৈনিক ইলশেপাড়ের প্রধান সম্পাদক রোটাঃ মাহবুবুর রহমান সুমন, জাতীয় নৃত্য প্রশিক্ষক নূরে আলম চন্দন। বিশেষ সম্মাননা পাচ্ছেন মৎস্যজীবী নেতা আব্দুল মালেক দেওয়ান, মানিক দেওয়ান, মৎস্য রপ্তানীকারক রোটাঃ মোঃ শবেবরাত, মৎসজীবী নেতা শাহআলম মল্লিক, তছলিম বেপারী, মেহেদী উৎসবের প্রণেতা অ্যাডঃ আবুল কালাম সরকার, বিতর্ক সংগঠক রাজন চন্দ্র দে, ঈদ আনন্দ উৎসবের প্রণেতা এম.আর ইসলাম বাবু, চতুরঙ্গের প্রতিষ্ঠাতা সদস্য জাহাঙ্গীর ভূইয়া, পরিবেশ আন্দোলনের কর্মী আশিক খান, সাংস্কৃতিক সংগঠক জাহাঙ্গীর আলম হৃদয়।