শাহরাস্তিতে গলাকাটা গুজবে মানসিক রোগীকে নাজেহাল

পদ্মাসেতুর নির্মাণ কাজে মানুষের মাথা লাগবে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়া এমন গুজবে গলাকাটা ছেলেধরা ভেবে এক নারী মানসিক রোগীকে (৬৫) নাজেহাল করে পুলিশে দিয়েছে স্থানীয় এলাকাবাসী। গতকাল ১০ জুলাই বুধবার দুপুরে শাহরাস্তি পৌরসভার ১নং ওয়ার্ডের কাজিরকামতা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

জানা গেছে, বুধবার দুপুরে ওই গ্রামের বড় বাড়ি সংলগ্ন রাস্তার মাথায় অজ্ঞাত নারীকে ঘুরাফেরা করতে দেখে স্থানীয় লোকজন। এমন সময় কে বা কারা ওই নারীকে পদ্মাসেতুর গলাকাটা গ্রুপের সদস্য বলে আখ্যা দিলে হুজুগে লোকজন তাকে মারধর করে। পরে তাকে ওয়ার্ড কাউন্সিলর নূর মোহাম্মদ মোল্লার ব্যবসায়িক কার্যালয়ে নিয়ে যাওয়া হয়। খবর পেয়ে পুলিশ তাকে থানা হেফাজতে নেয়।

পৌরসভার ১নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর নূর মোহাম্মদ মোল্লা জানান, এলাকাবাসী একজন নারীকে সন্দেহজনক ঘুরাফেরা করতে দেখে গলাকাটা ছেলেধরা ভেবে মারধর করে আমার দোকানে নিয়ে আসে। আমি মানুষের রোষানল থেকে তাকে বাঁচাতে পুলিশে খবর দিই।

শাহরাস্তি থানার উপপরিদর্শক (এসআই) জহিরুল ইসলাম জানান, থানা হেফাজতে নেয়া নারীটি মানসিক বিকারগ্রস্ত। আমরা খোঁজ নিয়ে জানতে পেরেছি তার বাড়ি নেত্রকোনা সদর থানা এলাকায়। পরিবারের লোকজন এলে তাদের জিম্মায় তাকে দেয়া হবে।

শাহরাস্তি থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোঃ শাহ আলম জানান, হেফাজতে থাকা নারীকে তার পরিবারের কাছে হস্তান্তরের চেষ্টা চলছে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়ানো গুজবে বিশ্বাস করা হুজুগে লোকজন এসব করছে। গুজবে কান না দেয়ার জন্যে তিনি এলাকাবাসীর প্রতি আহ্বান জানান।