মতলবে অগ্নিকাণ্ডে সাতটি ঘর ভস্মীভূত ২৫ লক্ষাধিক টাকার ক্ষয়ক্ষতি আহত ২

মতলব পৌরসভার উত্তর দিঘলদী গ্রামের মৃধা বাড়িতে গতকাল ৪ সেপ্টেম্বর বুধবার বিকেল ৫টায় রান্নাঘর থেকে বৈদ্যুতিক শর্ট সাকিট ও গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরণের কারণে অগি্নকা-ে সাতটি ঘর ভস্মীভূত হয়েছে। আগুন নেভাতে গিয়ে বিল্লাল প্রধান ও কাউসার মিয়া নামে দুই ব্যক্তি গুরুতর আহত হয়েছে। এতে কমপক্ষে চারটি পরিবারের প্রায় ২৫ লক্ষাধিক টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে বলে ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারগুলো জানিয়েছে।

সরজমিনে গিয়ে দেখা যায়, ওইদিন বিকেলে আজিম মৃধার মা রানু বেগম (৭০) আগুনের লেলিহান শিখা দেখতে পেয়ে ডাকচিৎকার দেয়। পরে আশপাশের লোকজন দৌড়ে আসে। রান্নাঘর থেকে অগি্নকা-ের সূত্রপাত হয়েছে। এ সময় ঘরে থাকা গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরণে আগুনের লেলিহান শিখা দ্রুত পার্শ্ববর্তী ঘরগুলোতে ছড়িয়ে পড়ে। মুহূর্তের মধ্যে বাড়ির আজিম মৃধা, কামাল মৃধা, নীল মিয়া মৃধা ও নূরুল ইসলাম মৃধার ৪টি বসতঘর ও ৩টি রান্নাঘরে আগুন ছড়িয়ে পড়ে। আগুন লাগার আধা ঘণ্টার মধ্যে মতলব দক্ষিণ ফায়ার সার্ভিসের একটি দল ঘটনাস্থলে পেঁৗছে প্রায় এক ঘণ্টার চেষ্টায় আগুন নিয়ন্ত্রণ আনতে সক্ষম হয়।

বাড়ির বিজয় মৃধা ও শাহজাহান মৃধা বলেন, আমাদের বাড়ির প্রতি ঘরেই গ্যাস সিলিন্ডার রয়েছে। আগুন লাগার পর গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরণে আগুন দ্রুত ছড়িয়ে পড়ে। এরই মধ্যে আজিম মৃধার বোনের বিবাহের খরচের নগদ এক লক্ষাধিক টাকা, ইলেক্ট্রনিঙ্ সামগ্রী, আসবাবপত্র, গবাদি পশু পুড়ে প্রায় ২৫ লক্ষাধিক টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে।

মতলব দক্ষিণ ফায়ার সার্ভিস এন্ড সিভিল ডিফেন্স স্টেশন ইনচার্জ মোঃ আসাদুজ্জামান মিয়া বলেন, মুঠোফোনে প্রায় ৫টার দিকে আগুন লাগার বিষয়টি জানতে পেরে দ্রুত ঘটনাস্থলে গিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণ আনতে সক্ষম হই। বৈদ্যুতিক শর্ট সার্কিট থেকে আগুনের সূত্রপাত হয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

মতলব দক্ষিণ থানার অফিসার ইনচার্জ স্বপন কুমার আইচ ও মতলব পৌরসভার মেয়র (ভারপ্রাপ্ত) আবুল বাশার পারভেজ মিয়াজী, ৬নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মামুন মৃধা আগুন লাগার খবর পেয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন এবং আগুন নেভাতে সহযোগিতা করেন।