বাজেটে শিক্ষার সঙ্গে অবকাঠামো উন্নয়ণে গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে …………………………………….চাঁদপুরে শিক্ষামন্ত্রী

রফিকুল ইসলাম বাবু ঃ এবারের বাজেটে শিক্ষাখাতে চাহিদা মতো বরাদ্দ মিলেছে। এই নিয়ে সন্তুষ্টির কথা জানিয়েছেন, শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি। তিনি আরো বলেন, শুধু শিক্ষার মানোন্নয়নই নয়, অবকাঠামোগত উন্নয়নের দিকেও লক্ষ্য রাখা হয়েছে। জিপিএ-৫ উঠিয়ে আন্তর্জাতিকমান রক্ষা করে গ্রেডিং পদ্ধতি চালু করার উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। শুক্রবার দুপুরে চাঁদপুর সার্কিট হাউজে এবারের বাজেট নিয়ে স্থানীয় সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলতে গিয়ে ডা. দীপু মনি এসব কথা বলেন। তিনি আরো বলেন, অতীতের চেয়ে এবারের বার্ষিক বাজেটে শিক্ষাখাতে বরাদ্দ বেড়েছে আনুপাতিক হারে। শুধু তাই নয়, মোট বাজেটে আগের চেয়ে ৭ গুণ বরাদ্দ বেশি দেওয়া হয়েছে। যে কারণে এর মানোন্নয়নে আশানুরূপভাবে কাজ করা যাবে। একই সঙ্গে বরাদ্দ অর্থ দিয়ে যথার্থ কাজ করার প্রতিশ্রুতি দেন শিক্ষামন্ত্রী। তিনি বলেন, অনেক দেশে শিক্ষাখাতে ১৪-১৪ ভাগ বরাদ্দ দিলেও শেখ হাসিনার সরকার এই দেশে তা ১৭ ভাগে উন্নীত করেছে। এটি দেশবাসীর জন্য একটি মাইল ফলক।মূলত যুগের সাথে তাল মিলয়ে আমাদের শিক্ষা কারিকুলাম সব সময় এগিয়ে নিয়ে যাওয়া এবং শিক্ষকদের যথাযথ প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করা হবে। আমাদের অনেক শিক্ষক এখনো কোন প্রশিক্ষণ পাননি। প্রশিক্ষনের দিক দিয়ে আমরা অনেকখানি পিছিয়ে। এসব কাজ আমরা খুব দ্রুত করতে পারি, সেটিই আমাদের প্রচেষ্টা এসময় অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, জেলা আওয়ামীলীগ সভাপতি, পৌর মেয়র নাসিরউদ্দিন আহম্মদ, সাধারণ সম্পাদক আবু নঈম দুলাল, জেলা প্রশাসক মো. মাজেদুর রহমান খান, পুলিশ সুপার জিহাদুল কবির, সদর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান নাজিম দেওয়ান, ভাইস চেয়ারম্যান আইউব আলী ব্যাপারী, জেলা ছাত্রলীগ সভাপতি আতাউর রহমনা পারভেজ, জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক গোলাম মোস্তফা বাবু প্রমূখ। পরে শিক্ষামন্ত্রী বেশ কয়েকটি সামাজিক অনুষ্ঠানে যোগ দেন। এর আগে দুপুরে ঢাকা থেকে চাঁদপুর পৌঁছালে জেলা প্রশাসক, পুলিশ সুপার ও আওয়ামীলীগ নেতৃবৃন্দ ফুল দিয়ে শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনিকে স্বাগত জানান।