ফরিদগঞ্জে সাবেক এমপি ও বর্তমান এমপি গ্রুপের সংঘর্ষ =জাতির পিতা ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ছবি ভাংচুর=আহত ২০

ফরিদগঞ্জ প্রতিনিধি শিমুল হাছান:
চাঁদপুরের ফরিদগঞ্জ উপজেলার বর্তমান সাংসদ শফিকুর রহমান ও সাবেক সাংসদ ড: মো: শামছুল হক ভুইয়ার গ্রুপের মধ্যে পরস্পর বিরোধী সংঘষের ঘটনা ঘটেছে । সংঘর্ষে এবারো সাবেক এমপি ড: শামছুল হক ভুঁইয়ার গাড়ী সহ ব্যাপক ভাংচুর করা হয়েছে। এ সময় সাবেক সাংসদ ড: শামছুল হক ভুইয়া ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা আবুল খায়ের পাটওয়ারী হামলার শিকার হয়েছেন।
সংঘর্ষে পুলিশ ও সাংবাদিক সহ কমপক্ষে ১৫/২০ জন আহত হয়েছে। গুরতর আহত ৫জন ফরিদগঞ্জ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি হয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে গতকাল শুক্রবার সকালে উপজেলা সদরে। এ খবর পেয়ে ফরিদগঞ্জ থানার ওসি আব্দুর রকিবের নের্তৃত্বে একদল পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে লাঠিচার্জ করে উক্তপ্ত পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনতে সক্ষম হয়। তবে ঘটনাস্থলে পুলিশের শক্ত অবস্থান থাকার কারনে বড় ধরনের কোন ঘটনা ঘটেনি বলে থানার ওসি আব্দুর রকিব জানিয়েছেন।
প্রত্যক্ষদর্শী ও পুলিশ জানায়, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মজিবুর রহমানের স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষে উপজেলা আওয়ামী লীগ আয়োজনে আলোচনা সভা চলছিল। এ সময় বর্তমান এমপি জাতীয় প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি শফিকুর রহমান এমপির গ্রুপের নেতাকর্মীরা উপজেলা যুবলীগের আহবায়ক আবু সুফিয়ান ও সিনিয়র যুগ্ম আহবায়ক হেলাল উদ্দীনের নের্তৃত্বে দলীয় শ্লোগান নিয়ে একটি আনন্দ মিছিল নিয়ে ফরিদগঞ্জ বাজার থেকে আসছিল। এক পর্যায়ে উপজেলা সদরের ভান্ডারী মহল মার্কেটের পাশে বিআরডিবির মার্কেটের থাকা উপজেলা আওয়ামী লীগের চলমান সভায় সাবেক এমপি ড: শামছুল হক ভুঁইয়ার প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য দিচ্ছিলেন । এ সময় অতর্কিত ভাবে দুই গ্রুপ সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। তখন পাশে থাকা সাবেক এমপি ড: শামছুল হক ভুইয়া, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা আবুল খায়ের পাটওয়ারী ও ১২ নং চরদুখিয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি ইউপি চেয়ারম্যান হাছান আবদুল হাইয়ের প্রাইভেট কার সহ কয়েকটি মোটর সাইকেল ছাড়াও আওয়ামী লীগের অফিসে ভাংচুর চালায় বিক্ষুদ্ধরা । একই সময়ে উক্ত স্থানে থাকা জাতির পিতার ছবি ভাংচুৃর করা হয়।
সংঘর্ষের সময় এলাকায় আতংকিত ব্যবসায়ীরা তাদের দোকান পার্ট বন্ধ করতে বাধ্য হয়ে। এ নিয়ে এলাকায় বর্তমানে থমথমে পরিস্থিতি বিরাজ করছে। এই রিপোর্ট লিখা পর্যন্ত ঘটনাস্থলে পুলিশ মোতায়েন থাকতে দেখা যায়।
সংঘর্ষে আহতরা হলো পুলিশের সদস্য মো: দিদার ,দৈনিক দর্পনের ফরিদগঞ্জ প্রতিনিধি গাজী মোমিন,আওয়ামী লীগ নেতা মিজানুর রহমান ভদ্র, নুর মোহাম্মদ, মো” রাশেদ, রানা , বাবু । এরা প্রত্যেকে ফরিদগঞ্জ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি হয়েছে।
অপরদিকে শফিকুর রহমান এমপি গ্রুপের উপজেলা আওয়ামী যুবলীগের আহবায়ক আবু সুফিয়ান ও সিনিয়র যুগ্ন আয়বায়ক হেলাল উদ্দীন বলেন, বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রর্তাবর্তন দিবস উপলক্ষে আমরা আনন্দ মিছিল নিয়ে আসছিলাম। এ সময় সাবেক এমপি ড: শামছুল হক ভুঁইয়া গ্রুপের পালিত দূর্নীতিবাজ ও অ¯্রধারী সন্ত্রাসীরা আমাদের মিছিলে অতর্কিত ভাবে ইটপাটকেল নিক্ষেপ করেছে। তারা আলোচনা সভার নামে আওয়ামী লীগকে এখন মূলত বিভক্ত করতে উঠেপড়ে লেগেছে। তারাই জাতির পিতা ও জননেত্রী প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনার ছবি ভাংচুর করে আমাদের বিরুদ্ধে এখন অহেতুক অপপ্রচার ছড়িয়ে পরিস্থিতি ঘোলাটে করতে চায়।
এ নিয়ে উপজেলা আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা আবুল খায়ের পাটওয়ারী সাংবাদিকদের সামনে এক বক্তব্য বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মজিবুর রহমানের স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষে উপজেলা আওয়ামী লীগের আয়োজনে আলোচনা সভা চলাকালীন বর্তমান এমপি শফিকুর রহমানের নাম উচ্চারন না করলেও তাকে ইংগিত করে বলেন তার নির্দেশে আজ আওয়ামী লীগের বিরোধী স্বাধীনতার স্বপক্ষের বিরোধী গ্রুপ উপজেলা আওয়ামী লীগের আয়োজিত আলোচনা সভার মধ্যে হামলা চালিয়েই ক্ষান্ত হয়নি। তারা উপজেলা আওয়ামী লীগের অফিসে থাকা জাতির পিতার ছবি তারই সুযোগ্য কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ছবি সহ বেশ কয়টি প্রাইবেটকার ও মটরসাইকেল ভাংচুর করেছে।
এ ছাড়াও সাবেক এমপি ড: শামছুল হক ভুইয়া এক বক্তব্য বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রর্তাবর্তন দিবস উপলক্ষে আয়োজিত আলোচনা সভায় যে সকল সন্ত্রাসীরা হামলা করেছে তারা আওয়ামী লীগ কিংবা এর সহযোগী সংগঠনের কেউ নয়। আমি এই ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি