ফরিদগঞ্জে মরহুম আইয়ুব আলী খাঁন স্মৃতি সংসদ গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্ণামেন্টের ফাইনাল খেলা ও পুরস্কার বিতরণী

মো. শিমুল হাছান:
চাঁদপুরের ফরিদগঞ্জে সাংবাদিক মুহম্মদ শফিকুর রহমান এমপি বলেছেন, ফরিদগঞ্জে বিকেএসপির মতো একটি ক্রীড়া শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গড়ে তোলার বিষয়টি আমি সংসদে তুলবো। এখান থেকেই বেরিয়ে আসতে পারে জাতীয় দলে খেলার জন্য যোগ্য খেলোয়াড়। এ ব্যপারে আমি ইতোমধ্যে এই এলাকার কয়েকজন সমাজসেবকের সঙ্গে কথা বলেছি, তারা বলেছেন আপনি উদ্যোগ নেন আমরা আপনাকে সহযোগিতা করবো।
তিনি আরো বলেন, আপনারা ৩০ ডিসেম্বরের নির্বাচনে যেভাবে আমাকে ভোট দিয়েছেন, কষ্ট করেছেন, আপনারা নৌকায় ভোট দিয়েছেন আপনাদের কাছে আমি কৃতজ্ঞ। আমি একটা কথা বলতে চাই, ১৯৭৫ সালে জাতির পিতাকে হত্যা করে বাঙ্গালীর স্বপ্ন আশা আকাংখা ধূলিসাৎ করে দিতে চেয়েছে। তারপর শেখ হাসিনা আমাদের জন্য আশির্বাদ হিসেবে এসেছেন।
তিনি আরো বলেন, আমরা ভালো কাজ করলে খারাপ লোকজন নিশ্চিহ্ন হয়ে যাবে। কেউ আমাদের ঠেকাতে পারবে না। আগামী পাঁচ বছরে ওই দুর্নীতিবাজরা মরা ডাকাতিয়ায় জোয়ারের পানির সাথে ভেসে যাবে। আপনারা যার তার নামের সাথে মাটি ও মানুষের নেতা লাঘাবেন না। এই স্মৃতি কমপ্লেক্সটি যিনি করেছেন মরহুম আইয়ুব আলী খাঁন সাহেব প্রকৃত পক্ষে তিনিই মাটি ও মানুষের নেতা। আর আজকের এই ক্রীড়া প্রতিযোগীতাটি অত্যন্ত সুন্দরভাবে আয়োজন করায় সকলকে ধন্যবাদ জানাচ্ছি।
শুক্রবার ১৫ ফেব্রুয়ারী বিকালে গৃদকালিন্দিয়ায় মরহুম আইয়ুব আলী খাঁন স্মৃতি সংসদের উদ্যোগে আয়োজিত গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্ণামেন্টের ফাইনাল খেলা ও পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে তিনি এসকল কথা বলেন।
মরহুম আইয়ুব আলী খাঁন শিক্ষা কমপ্লেক্সের মাঠে হাজারো দর্শকের উপস্থিতিতে টানটান উত্তেজনাপূর্ণ ফাইনাল খেলায় ট্রাইবেকারে নিউ মোহাম্মদীয়া ফুটবল একাদশ ৫-৪ গোলের ব্যবধ্যানে চরমুঘুয়া ভাই-বন্ধু ফুটবল একাদশকে পরাজিত করে।
স্মৃতি সংসদের সদস্য ও ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি মো. শরীফ খাঁনের সভাপতিত্বে ও ইউনিয়ন যুবলীগের সাবেক সভাপতি মাসুদ পাটওয়ারীর পরিচালনায় পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ফরিদগঞ্জ পৌর সভার মেয়র মো. মাহফুজুল হক, কেন্দ্রিয় আওয়ামী লীগের ত্রান ও সমাজকল্যাণ উপ-কমিটির সদস্য খাজে আহম্মদ মজুমদার, ফরিদগঞ্জ থানা অফিসার ইনচার্জ মো. হারুন অর রশিদ চৌধুরী।
এসময় অন্যানের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা কৃষক লীগের সভাপতি আব্দুর সাত্তার পাটওয়ারী, ইউপি সদস্য রফিকুল ইসলাম, এস এম টেলু, উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সহ-সভাপতি হেলাল উদ্দিন আহম্মেদ, সাবেক ছাত্রলীগ নেতা বাহার, মনির হোসেন, মাসুদ আলম আয়াত, বাবলু, আলাউদ্দীন ভূঁইয়া, মাহমুদুল হাসান মিরাজ, রসুল করিম, জাহাঙ্গীর, শরীফ পাটওয়ারী, মাহমুদুল হাছান তুহিন, শাহজালাল সুইট, শান্ত পাটওয়ারী, আল আমিন, হানিফ, স্মৃতি সংসদের সদস্য দিদার খান, রায়হান, মনির, রাজন, রনি, শরীফ, আমিন, মোবারক খাঁন, বাঁধন খাঁন, মিঠু, প্রদীপ, সোহেল প্রমুখ।