ফরিদগঞ্জে প্রতারক চক্র থেকে সাবধান !

                                                                   প্রতারকের বিরুদ্ধে এবার পুলিশও কঠোর অবস্থানে রয়েছে
মো. শিমূল হাছান
পবিত্র রমজান ও ঈদের বাজারকে কেন্দ্র করে ফরিদগঞ্জের বিভিন্ন এলাকায় প্রতারক চক্র তাদের অপতৎপরতা চালাতে তৎপর থাকে। প্রতারক চক্রের সদস্যরা বিভিন্ন ব্যাংক ও হাট বাজার কিংবা বাসা বাড়িতে অবস্থান নেয়। পরে অবস্থা বুঝে ক্ষুধার্ত বাঘের ন্যায় তাদের শিকার হিসেবে গ্রামের সহজ সরল নারী পুরুষের বিভিন্ন মিথ্যা প্রলোভনে ফেলে টাকা কিংবা স্বর্নালংকার অভিনব কায়দায় হাতিয়ে নিতে নানা কৌশল প্রয়োগ করে। তবে এবার ওই প্রতারক চক্রের সদস্যদেরকে আটক করতে থানা পুলিশ প্রশাসন উপজেলা প্রতিটি এলাকায় কঠোর নজর দারিতে রেখেছে বলে নিশ্চিত করেছে।
গত রমজান মাসে এ চক্রের ফাঁদে পড়ে কেউ হারিয়েছে টাকা আবার কেউবা স্বর্নালংকার হারিয়ে পথে পথে হাউমাউ করে কাঁদতে দেখা গেছে । আর প্রতারক চক্রের ফাঁদে পড়ছে বিশেষ করে বিভিন্ন প্রবাসী পরিবারর সহজ সরল বিভিন্ন বয়সের নারী কিংবা পুরুষ সদস্যরা।
খোজ নিয়ে জানা গেছে, ঈদের বাজার করতে আসা মানুষ গুলো বিশেষ করে প্রবাসী পরিবারের সদস্য সংখ্যা বেশি হয়। প্রবাসীর পাঠানো টাকা ব্যাংক থেকে টাকা উত্তোলনের পর পিছু হাটে প্রতারক চক্র। যখন ব্যাংক থেকে টাকা উত্তলন করে, তখন ব্যাংকের ভিতরে ও বাজারের কয়েকটি গুরুত্ব পূর্ণ স্পটে অবস্থান নেয় প্রতারক চক্রেরই সদস্য মহিলা-পুরুষ সদস্যরা। সুযোগ বুঝে এইসব প্রতারক চক্র তাদের বিভিন্ন কৌশলে প্রবাসী সরল মানুষ গুলোর টাকা-পয়ঁসা স্বর্ণ অলংকার সহ সব হাতিয়ে নিয়ে মুহুর্তেই এই প্রতারক চক্রটি গা ঢাকা দেয়। প্রতারক চক্রের সদস্যরা তাদের শিকার নিশ্চিত করতে বিশেষ করে ব্যাংক সহ বিভিন্ন হাট বাজারে অবস্থান নেয়।
এক প্রবাসীর বাবা জানান, গত বছর আমার পুত্রবধু ব্যাংক থেকে টাকা তুলে বাড়িতে যাওয়ার সময় পথে এক মহিলা এসে প্রথমে তার সাথে খাতির করে। পরে একটি স্বর্ণের চেইন দেখিয়ে বলে তার খুব টাকার দরকার, এই কারনে সে স্বর্ণ গুলো বিক্রি করবে । এ কথায় বিশ^াস করে ওই প্রবাসীর স্ত্রী তাতে রাজি হয়ে ৪০ হাজার টাকার বিনিময় স্বর্ণ কিনে নেয়। বাড়ি এসে দেখে সেই স্বর্ন আসল স্বর্ন নয়। ইমিটেশনের গহনাকেই আসল স্বর্ন বলে সহজ সরল মানুষকে প্রতারিত করে আসছে ওই চক্রটি। এ রকম অহরহ ঘটনা শুনা যায় বিভিন্ন এলাকায়। মাঝে মধ্যে এলাকাবাসীর জেরার মুখে প্রতারক চক্রকে এক পর্যায়ে আটক কওে পুলিশের হাতে তুলে দেয়ার একাধিক তথ্য প্রমান রয়েছে।
ফরিদগঞ্জ থানার ওসি আব্দুর রকিব গতকাল রোববার এ প্রতিনিধিকে বলেন জানান, পবিত্র রমজান ও ঈদের বাজারে যাতে করে কোন নারী পুরুষ প্রতারক চক্রের খপ্প্র থেকে রক্ষা করতে পুলিশের কঠোর নজর দারি রয়েছে। এ ছাড়াও উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় ব্যাংকসহ গুরুত্বপূর্ন স্থানে পুলিশের পাশাপাশি বিভিন্ন সংস্থার লোকজনের পাহারা সহ কঠোর নজর দারি রাখতে ফরিদগঞ্জের বিভিন্ন এলাকার ব্যাংক ম্যানেজার ও জনপ্রতিনিধিকে বার্তা দেয়া হয়েছে।