ফরিদগঞ্জে চার বোনকে পিটিয়ে আহত করার ঘটনায় গ্রেফতার ১

ফরিদগঞ্জে পূর্ব শত্রুতার জের ধরে হতদরিদ্র পরিবারের চার বোনকে পিটিয়ে আহত করেছে প্রতিপক্ষরা। আহত চার বোন ফরিদগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেঙ্ েচিকিৎসাধীন আছে। এ ঘটনায় পুলিশ একজনকে আটক করে গতকাল সোমবার আদালতে প্রেরণ করেছে। গতকাল বিকেলে আহত শামিমা আক্তার সুমী বাদী হয়ে তারই চাচা ইয়াকুব শেখকে প্রধান আসামী করে ফরিদগঞ্জ থানায় একটি মামলা দায়ের করেছে।

অভিযোগে জানা গেছে, রামদাসেরবাগ গ্রামের বৃদ্ধ শামছুল হুদা কালু শেখ (৬৬)-এর সঙ্গে প্রতিপক্ষ তারই ভাই ইয়াকুব গংয়ের জমিজমা নিয়ে দীর্ঘদিন যাবৎ বিরোধ চলে আসছিলো। এরই জের ধরে গত রোববার সকাল ১১টায় শেখ বাড়িতে স্থানীয় দু’ সাংবাদিকের উপস্থিতিতেই দুই পক্ষের মধ্যে বাদানুবাদ সৃষ্টি হয়। এ সময় অভিযুক্ত ইয়াকুব (৩৫)-এর নেতৃত্বে আবু তাহের (৩৪), মাহফুজ (২৪) ও ফরহাদ (২৪) শামছুল হুদা শেখের বসতঘরে ঢুকে শামছুল হুদার অবিবাহিত কন্যা শামিমা আক্তার সুমী (২২)-কে এলোপাতাড়ি মারধর করে। ছোট বোনকে মারধর করতে দেখে পারুল বেগম (৩৬), রহিমা বেগম (৩৪) ও রুনা বেগম (২৭) এগিয়ে গেলে তারাও মারধরের শিকার হয়। এ সময় আশপাশের লোকজন ছুটে গিয়ে উভয় পক্ষকে নিবৃত করেন। পরে আহত চার বোনকে এলাকাবাসীর সহযোগিতায় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেঙ্ েভর্তি করা হয়।

মামলার বাদী শামিমা আক্তার সুমী কান্নাজড়িত কণ্ঠে বলেন, আমরা ইয়াকুব গংয়ের হাতে বারংবার মার খাচ্ছি। কিন্তু বিচার পাই না। তিনি বলেন, আমরা পাঁচ বোন। আমাদের কোনো ভাই নেই। মা-বাবা দুইজনই বৃদ্ধ ও অসুস্থ। আমরা সংশ্লিষ্টদের কাছে ন্যায় বিচার চাই।

অপরদিকে বিবাদী পক্ষের আবু তাহের পাটওয়ারী বলেন, আমার মামা ইয়াকুবের বাড়িতে ফরিদগঞ্জের দু’জন সাংবাদিক এসেছিল। তখন সাংবাদিকদের উপস্থিতিতে দুই পক্ষের কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে সুমির বোন রহিমা আমার মামা ইয়াকুবের সাথে বেয়াদবি করাকে কেন্দ্র করে দু’পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ হয়েছে।

ঘটনার বিষয়ে স্থানীয় ঠিকাদার নজরুল ইসলাম ও ইউপি সদস্য বতু মেম্বার রোববার দুপুরে সুমী গংয়ের ওপর মারধরের ঘটনা শিকার করে বলেছেন, তাদের দুই পক্ষের মধ্যে দীর্ঘদিন যাবৎ বিরোধ চলে আসছে।

এলাকার কয়েকজন বলেছেন, তাদের দুই পক্ষের বিরোধ স্থায়ীভাবে সমাধান না হলে যে কোনো সময় জানমালের ক্ষয়ক্ষতিসহ বড় রকমের সংঘর্ষ হতে পারে।

এ ব্যাপারে ফরিদগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ আব্দুর রকিব বলেন, তদন্ত সাপেক্ষে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা