প্রসবজনিত ফিস্টুলা!

2611884edff5373e11f62fe647486198-17

মাতৃত্ব! একজন নারী পূর্ণতা লাভ করেন মাতৃত্বের মধ্য দিয়ে। গর্ভধারণ থেকে শুরু করে শিশুর জন্মদান পর্যন্ত একটি অত্যন্ত জটিল প্রক্রিয়া। এই প্রক্রিয়ায় কোনো ব্যত্যয় ঘটলে তা ঐ নারীর জীবনে হয়ে উঠতে পারে, অভিশাপ স্বরূপ। তেমনি একটি অভিশাপের নাম ফিস্টুলা বা প্রসবজনিত ফিস্টুলা।প্রসবের সময় যদি বাচ্চার মাথা যোনিপথের মুখে আটকে যায় এবং তা দীর্ঘসময় আটকে থাকে তবে বাচ্চার মাথার সামনের অংশ দ্বারা মূত্রথলী এবং পিছনের অংশ দ্বারা পায়ুপথ চাপের মুখে থাকে। দীর্ঘসময় চাপে থাকার ফলে এই সমস্ত অঙ্গসমূহে রক্ত চলাচল ব্যাহত হয় এবং তাতে পচন ধরে। পচনযুক্ত টিস্যু খসে কয়েকদিনের মধ্যে সেখানে ছিদ্র সৃষ্টি হয়। মূত্রথলী ও যোনিপথের বা পায়ুপথ ও যোনিপথের মধ্যে সৃষ্ট এই ছিদ্রের মাধ্যমে অস্বাভাবিক সংযোগ তৈরি হয়। ছিদ্র পথে এসব নারীদের অনবরত প্র¯্রাব বা পায়খানার রস ঝরতে থাকে। একেই প্রসবজনিত ফিস্টুলা বলা হয়ে থাকে।এর ফলে তারা পরিবার ও সমাজ থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়। সামাজিক কোনো কাজে তাদের অংশগ্রহণ থাকে না। তারা মানসিকভাবে ভীষণ ভেঙে পড়ে। বেশিরভাগ ক্ষেত্রে এ ধরনের রোগীরা নিজেদের লুকিয়ে রাখে। এসবের জন্য অনেকে নিজেকে অপরাধী মনে করে। অনেকসময় তারা মনে করে এটি তাদের কোনো পাপের ফল। প্রসবকালীন ফিস্টুলা হলে বেশিরভাগ নারীরা তা লুকিয়ে রাখতে চান। এ সমস্যা দেখা দিলে স্বামী, পরিবার সদস্য, বন্ধু-বান্ধব কারো সাথে বিষয়টি আলোচনা করতে ভয় পান। এতে যদি অন্য সবাই জেনে যায় তবে সে আর সমাজে মিশতে পারবে না। স্বাস্থ্যসেবায় নিয়োজিত সকল কর্মীসহ আমরা সবাই তাদেরকে আশ্বস্ত করব যে, এই বিষয়গুলো জানলেও আমরা তা গোপন রাখব। এ ধরনের সমস্যা যে কারো হতে পারে। এসময় একজন নারীর মানসিক অবস্থার পরিপ্রেক্ষিতে সম্পর্কের উন্নয়ন করা, সহানুভূতিশীল আচরণ করা, কথিত বিশ্বাস আচরণ ও দৃষ্টিভঙ্গি থেকে বের করে নিয়ে আসা এবং তার কথা মনোযোগ দিয়ে শোনা অত্যন্ত জরুরি এবং তাকে বোঝাতে হবে এটির চিকিৎসা রয়েছে।বর্তমানে বাংলাদেশে প্রসবজনিত ফিস্টুলার চিকিৎসার ব্যবস্থা রয়েছে।

বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই এটি অন্যসব শারীরিক সমস্যার মতোই একটি সমস্যা। তবে একটু সচেতন থাকলে এ সমস্যা থেকে সহজেই পরিত্রাণ পাওয়া সম্ভব।প্রসবজনিত ফিস্টুলা প্রতিরোধের উপায়১৮ বছরের আগে মেয়েদের বিয়ে নয়২০ বছরের আগে গর্ভধারণ নয়ঘন ঘন গর্ভধারণ নয়নিয়মিত প্রসবপূর্ব স্বাস্থ্য পরীক্ষাবিলম্বিত ও বাধাগ্রস্ত প্রসব হলে গর্ভবতীকে দ্রুত নিকটবর্তী স্বাস্থ্যকেন্দ্রে নিয়ে যানদক্ষ ও প্রশিক্ষিত স্বাস্থ্য সেবাদানকারী দিয়ে নিরাপদ প্রসব করানোআমাদের সকলের মনে রাখতে হবে একজন ফিস্টুলা রোগী শারীরিক সমস্যার পাশাপাশি মানসিকভাবেও অনেক বিপর্যস্ত থাকেন। অনেকসময় তারা জীবিত থেকেও মৃত। তাই তার প্রতি সহায়তার হাত বাড়িয়ে দেয়া প্রতিটি সচেতন নাগরিকের কর্তব্য।

প্রভাষক.ডাঃ এস.জামান পলাশ
জামান হোমিও হল
01711-943435 //01670908547
চাঁদপুর হোমিওপ্যাথিক মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতাল
ওয়েব সাইট –www.zamanhomeo.com
ব্লগ–http://zamanhomeo.com/blog

( প্রতি মুহুর্তের চিকিৎসা বিষয়ক খবর গুলো নিয়মিত পেতে আমাদের ফেসবুক পেইজে লাইক দিন ) https://www.facebook.com/ZamanHomeoHall