জেলেদের কাছ থেকে টাকা উত্তোলনের অভিযোগেপুরাণবাজারের এক যুবকের দুই মাসের কারাদন্ড

স্টাফ রিপোর্টারঃ ইলিশ অভয়াশ্রম ও জাটকা রক্ষা কর্মসূচি চলাকালে নৌ বাহিনীর নাম ভাঙ্গিয়ে জেলেদের কাছ থেকে টাকা লেনদেনের দায়ে সাদ্দাম খা( ২৫) নামে
এক স্প্রীড বোট চালককে দুই মাসের কারাদন্ড প্রদান করেছেন জেলা প্রশাসনের ভ্রাম্যমান আদালত। সাজাপ্রাপ্ত আসামি সাদ্দাম খা পুরাণবাজার ১ নং খেয়া ও ট্রলার ঘাটের ব্যবসায়ি মোম ফ্যাক্টরির ইউসুফ খার ছেলে।
মঙ্গলবার দুপুরে নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট মোরশেদুল ইসলাম ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করে তাকে জেলা কারাগারে প্রেরন করেন।
অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিষ্ট্রেট মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ মাহমুদ জামান জানান, আটক যুবক নৌ বাহিনীসহ প্রশাসনের নাম ভাঙ্গিয়ে নিষেধাজ্ঞার সময় অনেক জেলেদের কাছ থেকে টাকা পয়সা নিয়েছে।এর সত্যতা প্রমান পাওয়ায় তাকে ভ্রাম্যমান আদালতের মাধ্যমে এই সাজা দেয়া হয়।

নৌ বাহিনীর বিএনএস পদ্মা কমান্ডার আব্দুল্লাহ মামুন জানান,স্প্রীড বোট চালানোর সুবাদে সাদ্দাম নদীতে জেলেদের ভয়ভীতি দেখাত। জাল ধরবে না,জাল ছাড়িয়ে দেয়া হবে বলে অনেক জেলেদের কাছ থেকে টাকা নিয়েছে। জেলেদের এসব অভিযোগে আমরা তাকে ধরে জেলা প্রশাসনের কাছে সোপর্দ করা হয়।

এ দিকে এলাকা সূত্রে জানাযায়, সাদ্দামসহ একটি চক্র নদীতে অভিযান চলাকালীন সময়ে
নৌ পুলিশ,কোস্টগার্ড, নৌ বাহিনী এবং ফিশারি ম্যানেজ করার নাম ব্যবহার করছে।তারা মাছ ধরতে দেয়া হবে প্রশাসন ধরবে না বলে জেলেদের কাছ থেকে লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নিয়েছে।সে নদীর চোরাচালানি কাজের সাথেও জড়িত এ ছাড়া সাংবাদিক ও প্রশাসনের সোর্স পরিচয়েও চাঁদাবাজির অভিযোগ রয়েছে তার বিরুদ্ধে।
এ অবৈধ টাকার প্রভাবে সাদ্দাম খা ১ নং খেয়াঘাটে নদীর পাড় সরকারি জায়গা দখল করে মূল্যবান স্থাপনা নির্মান করেছে বলে জানায় এলাকাবাসী।