চাঁদপুর স্ত্রীকে শ্বাসরুদ্ধ করে হত্যার অভিযোগ, হাসপাতালে মৃত স্ত্রীকে রেখে স্বামী পলায়ন

শাহরিয়ার খান কৌশিক

চাঁদপুর শহরের ওয়ারলেশ বাজার এলাকায় লম্পট স্বামী স্ত্রীকে শ্বাসরুদ্ধ করে হত্যা করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। স্ত্রীকে হত্যা করে নিজে বাঁচতে চাঁদপুর সরকারি হাসপাতালে মৃত স্ত্রী তানজিনা আক্তিার(২২)কে রেখে পালিয়েছে স্বামী জুয়েল। শুক্রবার (১৩ সেপ্টেম্বর) রাতে হাসপাতালের জরুরী বিভাগে এ ঘটনা ঘটে। স্বামী পালিয়ে যাওয়ায় নিহত গৃহবধূর সাথে কোন আত্মীয় স্বজন না থাকায় তার নাম পরিচয় তাৎক্ষণিক হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ না পেলেও সাংবাদিকদের অনুসন্ধানে স্বামী এবং স্ত্রীর পরিচয় মিলেছে। স্বামী জুয়েলের বিরুদ্ধে নারী নির্যাতন মামলা দায়ের করায় ক্ষিপ্ত হয়ে বদলা নিতে স্ত্রীকে হত্যা করে ঘটনাটি ধামাচাপা দেওয়ার চেষ্টা করে। ঘটনার পরেই চাঁদপুর মডেল থানার পুলিশ হাসপাতালে এসে লাশটি সুরতাল করে। এসময় নিহতের গলায় ও গায়ে আঘাতের চিহ্ন পাওয়া যায়। মৃত নারীর ছোট ভাই মেহেদী হাসান জানান, বছর পাঁচেক আগে প্রেমের সম্পর্কে জেলার ফরিদগঞ্জ উপজেলার বালুথুবা কৃষ্ণপুর মুন্সীর বাড়ির মুন্নাফ মুন্সীর কন্যা তানজিনা আক্তিারের সাথে চাঁদপুর সদর উপজেলার তরফুরচন্ডি তফাদার বাড়ির নুরু খানের ছেলে জুয়েল খানের সাথে প্রেমের সম্পর্কে বিয়ে হয়। কিন্তু দু’জনের সম্পর্কে তেমন মিল না থাকায় সংসারে হারহামেশা ঝগড়া লেগেই থাকতো। সে সূত্রে প্রায়ই তানজিনাকে মারধর করতো জুয়েল এমনটি দাবি ছোট ভাই মেহেদীর। ২০১৮ সালে শেষের দিকে জুয়েলের বিরুদ্ধে নারী নির্যাতন মামলা দায়ের করে। মামলাটি এখনো চলমান রয়েছে। মামলা করায় স্বামী জুয়েল বদলা নিতে স্ত্রীকে হত্যা করেছে। জুয়েল চাঁদপুর টেকনিক্যাল স্কুল এলাকায় তার মালিকানাধীন মায়ের দোয়া ইঞ্জিনিয়ারিং ওয়ার্কশপ নামে একটি দোকানে গাড়ি সার্ভিসিংয়ের কাজ করতো। এ বিষয়ে কথা বলতে জুয়েলের মুঠোফোনে ০১৮১১৫৮৬৫০১ একাধিকবার চেষ্টা করেও বন্ধ পাওয়া গেছে। হাসপাতালের মেডিকেল অফিসার সৈয়দ আহমেদ কাজল জানান,শুক্রবার সন্ধ্যায় নিহতের স্বামী মৃতাবস্থায়ই ওই নারীকে হাসপাতালে নিয়ে আসে। আমি প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে তার ইসিজি পরীক্ষার ফাঁকে তার স্বামী পালিয়ে যায়। আমরা প্রায় একঘন্টা অপেক্ষা করার পরেও তার স্বামী আর ফিরে না আসায় আমরা এটিকে অপমৃত্যু হিসেবে চাঁদপুর মডেল থানাকে অবগত করি। তবে কি কারণে তার মৃত্যু হয়েছে, তা ময়না তদন্ত শেষে নিশ্চিত করা যাবে।