চাঁদপুর লঞ্চঘাটে মলম পার্টির খপ্পরে পড়ে দুই যাত্রী গুরুতর অসুস্থ ২ জন আটক

ঢাকা থেকে ছেড়ে আসা ভান্ডারিয়াগামী যাত্রীবাহী লঞ্চে মলম পার্টির খপ্পরে পড়ে সান্দু শিকদার (৫৫) ও আব্দুল লতিফ গাজী (৭৫) গুরুতর অসুস্থ হয়েছেন। এই ঘটনায় চাঁদপুর নৌ-থানা পুলিশ মলম পার্টি চক্রের ২ সদস্যকে আটক করেছে। অসুস্থ দুই যাত্রী বতর্মানে চাঁদপুর সরকারি জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।রোববার (১৪ জুলাই) দিবাগত রাত আনুমানিক সাড়ে ১০টার দিকে চাঁদপুর লঞ্চঘাট থেকে অসুস্থ দুই যাত্রীকে উদ্ধার ও মলমপার্টি চক্রের সদস্য মোঃ দুলাল হাওলাদার (৪৭) ও মজিবুর রহমান (৫৫) কে আটক করা হয়।অসুস্থ যাত্রী সান্দু শিকদার বরিশাল জেলার বানারীপাড়া উপজেলার চিরপাড়া এলাকার মৃত আছমত আলী শিকদারের ছেলে এবং আব্দুল লতিফ পিরোজপুর জেলার ইন্দুরকানি থানার ঢালীপাড়া এলাকার মৃত আদম আলী গাজীর ছেলে। আটক দুলাল হাওলাদার ঝালকাঠি জেলার কাঠালিয়ার আব্দুল আজিজ হাওলাদারের ছেলে এবং মজিবুর রহমান পটুয়াখালী জেলার কপালভেড়া এলাকার মোঃ ওয়াজেদ আলী মৃধার ছেলে।চাঁদপুর নৌ-পুলিশ জানায়, ঢাকার সদরঘাট থেকে এমভি টিপু-১২ নামক লঞ্চটি ছেড়ে আনুমানিক রাত ৮টার দিকে মুক্তারপুর ব্রীজের কাছে আসলে মলম পার্টির সদস্যরা যাত্রীদের খাবারে নেশা জাতীয় দ্রব্য মিশিয়ে দেয় এবং শরীরে মলম লাগিয়ে দেয়। এতে করে ওই দুই যাত্রী ধীরে ধীরে অসুস্থ হয়ে পড়েন। অসুস্থ যাত্রীদের মধ্যে আব্দুল লতিফ তার শরীরের অবস্থার অবনতি দেখে লঞ্চের সুপারভাইজার আবুল কাশেমকে জানান। তিনি তাৎক্ষণিক প্রাথমিক চিকিৎসার ব্যবস্থা করেন। পরে আব্দুল লতিফ সুপারভাইজারকে মলমপার্টি চক্রের ওই দুই সদস্যকে আকার ইঙ্গিতে দেখিয়ে দিলে লঞ্চ কর্তৃপক্ষ তাদের আটক করে রাখে।

চাঁদপুর লঞ্চঘাটে লঞ্চ মালিক প্রতিনিধি শাহ আলম মিজি জানান, ঘটনার খবর পেয়ে লঞ্চটি ঘাটে ভিড়ার পরে যাত্রীদের সহায়তায় অসুুস্থ দুই যাত্রীকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে ভর্তি করি। তারা বর্তমানে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

চাঁদপুর নৌ-থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোঃ আবু তাহের খান জানান, লঞ্চটি চাঁদপুর ঘাটে আসার পর লঞ্চ স্টাফ ও যাত্রীদের সহায়তায় মলম পার্টির দুই সদস্যকে আটক করা হয়। তাদের কাছ থেকে অজ্ঞান করার কাজে ব্যবহৃত বিভিন্ন প্রকার ঔষধ, মলম, দু’টি মোবাইল জব্দ করা হয়। অসুস্থ যাত্রীদেরকে চাঁদপুর লঞ্চঘাটের মালিক প্রতিনিধি মোঃ শাহ আলম মিজির সহায়তায় পুলিশ সদস্যরা চিকিৎসার জন্যে চাঁদপুর সরকারি জেনারেল হাসপালে নিয়ে ভর্তি করায়। আটকদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থাগ্রহণ করা হবে। এই ঘটনায় মামলা দায়ের করা হয়েছে।