চাঁদপুর রামপুরে ড্রেজারের পানির তোপে নতুন রাস্তা ফাটল

 

চাঁদপুর সদর উপজেলার রামপুর ইউনিয়নের বালুর ড্রেজারের পানির তোপে নতুন রাস্তা ভেঙ্গে ফাটল দেখা দিয়েছে। এক মাস যেতে না যেতেই নতুন রাস্তাটি ফেটে যাওয়ায় স্থানীয়দের মাঝে চরম ক্ষোভ বিরাজ করতে দেখা যায়।
ব্যক্তি স্বার্থে স্থানীয় এক ব্যক্তি ড্রেজারের মাধ্যমে একটি পুকুর ভরাট করতে গিয়ে পাড় ভেঙে রাস্তাটি ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। এ ঘটনায় স্থানীয় লোকজনদের সাথে ড্রেজার মালিক ও পুকুর মালিকের সাথে বাকবিতন্ডার সৃষ্টি হয়েছে।
নতুন রাস্তা ভেঙে যাওয়ায় স্থানীয়রা পুকুর ভরাটের কাজ ও ড্রেজারটি বন্ধ করে দিয়েছে।
ঘটনার পরেই রামপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মামুন পাটোয়ারী ঘটনাস্থলে ছুটে যান এবং বিষয়টি উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষকে অবহিত করেন।
এক মাসের মধ্যেই ড্রেজারের কারণে রাস্তাটি ফাটল দেখা দেওয়ায় ঠিকাদারের ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হওয়ার সম্ভাবনা দেখা দিয়েছে।
জানা যায়, আই আর আই ডি পি-২ প্রকল্পের আওতায় শাহমাহমুদপুর ও রামপুর ইউনিয়নের একটি প্যাকেজে তিনটি কাজের ১ কোটি ৪৪ লক্ষ টাকায় টেন্ডার হয়। টেন্ডার প্রক্রিয়ার মাধ্যমে অন্তর ট্রেডার্স নামে ঠিকাদার প্রতিষ্ঠান কাজটি পায়। গত একমাস পূর্বে ঐ প্যাকেজে আলগী রাজারহাট বাজার রোডের ৮২০ মিটার নতুন কাজটি করা হয়।
রাস্তার কাজটি সঠিক ও নিয়মতান্ত্রিকভাবে করা হলেও রাস্তার পাশে একটি পুকুর ড্রেজারের মাধ্যমে ভরাট করার কারণে পানির তোপে পাড় ভেঙ্গে বেশ কয়েকটি জায়গায় ফাটল দেখা দেয়।
এই কারণে ঠিকাদার প্রতিষ্ঠানের ব্যাপক ক্ষতিসাধনের আশঙ্কা দেখা দিয়েছে।
ঠিকাদার প্রতিষ্ঠানের মালিক সজীব খান জানায়, আই আর আই ডি পি-২ প্রকল্পের আওতায় আলগী রাজারহাট বাজার রোডের ৮২০ মিটার নতুন কাজটি এক মাস পূর্বে সম্পূর্ণ করা হয়েছে। রাস্তার কাজের বিল নেওয়া হলেও অফিসে সিকিউরিটি টাকা জমা রয়েছে।
ব্যক্তি স্বার্থের জন্য পুকুর ভরাট করায় এই রাস্তাটি ফাটল দেখা দিয়েছে।
স্থানীয় চেয়ারম্যান ও সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের বিষয়টি অবহিত করা হয়েছে। ড্রেজার মালিক ও পুকুরের সম্পত্তির মালিকের কারণেই এই রাস্তাটি ভেঙেছে। রাস্তাটি যদি মেরামত না করা হয় তাহলে পুনরায় আরো ভাঙার আশঙ্কা দেখা দিবে। এখন এর দায়ভার কে নিবে।
রামপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মামুন পাটোয়ারী জানায়, রাস্তাটি মেরামত করার পূর্বে যদি পুকুরটি ভরাট করা হতো তাহলে রাস্তাটি ভাঙ্গন থেকে রক্ষা পেত। এছাড়া পুকুরের পাড়ে গাইডওয়াল করা হয়েছিল। পুকুর ভরাট করায় সরকারের এই গাইড ওয়াল এর টাকা অপচয় হয়েছে।
তবে এখনই রাস্তাটি মেরামত করা প্রয়োজন।