চাঁদপুর ডাকাতিয়া নদীতে ইভটিজিংকে কেন্দ্র করে অর্ধশতাধিক আহত। 

রফিকুল ইসলাম বাবু,
ডাকাতিয়া নদীতে হামলায় অর্ধশতাধিক আহত চাঁদপুরের হাজীগঞ্জ উপজেলা থেকে ট্রলারযোগে ৮৫ জন যুবক ও কিশোর ঈদ আনন্দ করতে মিনি ত্রিনদীর মোহনা থেকে ফেরার পথে ডাকাতিয়া নদীতে ইভটিজিংকে কেন্দ্র করে  যুবকদের অতর্কিত হামলায় প্রায় অর্ধশতাধিক যুবক ও কিশোর আহত হয়েছেন। এই ঘটনায় নিহত হওয়ার খবর পাওয়া যায়নি। তবে কেউ কেউ বলছেন কয়েকজন শিশু নিখোঁজ রয়েছে। শুক্রবার সন্ধ্যা ৭টার দিকে চাঁদপুর সদর উপজেলার শাহমাহমুদপুর ইউনিয়নের বাটেরগাঁও গ্রাম এলাকার ডাকাতিয়া নদীতে এই ঘটনা ঘটে শাহমাহমুদপুর ইউনিয়নের ট্রলারে থাকা যুবকরা জানান, তারা মেঘনার পশ্চিম পাড়ে চরে বেড়াতে গিয়েছিলো। সন্ধ্যায় আনুমানিক ৭টার দিকে ঘটনাস্থলে আসলে প্রায় ১২ থেকে ১৩জন যুবক তাদের উপরে হামলা চালায়। তখন তারা আত্মরক্ষার্থে নদীতে ঝাঁপ দেয়। এ সময় কয়েকজন শিশুও তাদের সাথে নদীতে ঝাঁপ দেয়। ভাটেরগাঁও এলাকার একজন বাসিন্দা জানান, সন্ধ্যার পর থেকে এ নিয়ে মানুষের মাঝে আলোচনা হচ্ছে। সকালে হাজীগঞ্জের যুবকরা চাঁদপুরে যাওয়ার সময় নদীর পাড়ে এক যুবতিকে ট্রলার থেকে ঢিল মারে। এরপর শাহতলী এলাকার কিছু যুবকের সাথে এ নিয়ে বাক বিতন্ডা হয়। হাজীগঞ্জের যুবকরা ট্রলার নিয়ে সন্ধ্যা ফেরার পথে পূর্ব থেকে উৎপেতে থাকা শাহতলীর যুবকরা তাদের উপর হামলা চালায়। এতে প্রায় অর্ধশতাধিক আহত হয়। কেউ কেউ নদীতে লাফিয়ে পড়ে চাঁদপুর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. নাসিম উদ্দিন বলেন, ঘটনার খবর পেয়ে রাতেই ঘটনাস্থলে ছুটে যাই। হাজীগঞ্জের ট্রলারে থাকা যুবকদের তথ্য মতে তারা ৮৫জন ছিলেন। এর মধ্যে ৪৬জনের খোঁজ পেয়েছি। ৪জন চাঁদপুরে হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়েছে। কেউ কেউ আত্মীয় স্বজনদের বাড়ীতে চলেগেছে। যারা সুস্থ্য রয়েছেন তারা বলছেন, রাতে হাজীগঞ্জে গিয়ে তারা তালিকা দেখে বলতে পারবেন কেউ নিখোঁজ আছেন কিনা।