চাঁদপুরে যাত্রীবাহি লঞ্চে প্রান জুসের সাথে নেশা জাতীয় দ্রব খায়িয়ে ৩জন অচেতন॥

 সর্বস্ব লুট-১৯ঘন্টায় ও জ্ঞান ফিরেনি ॥ উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকা মেডিকেলে প্রেরন

চাঁদপুর সংবাদদাতা॥ চাঁদপুরে যাত্রীবাহি লঞ্চে প্রান জুসের সাথে নেশা জাতীয় দ্রব প্রয়োগ করে ৩ যাত্রীকে অচেতন করে সর্বস্ব লুট করে নিয়ে যাওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। ঘটনাটি ঘটেছে,বৃহস্পতিবার রাত ৯টায় চাঁদপুর নৌ-টার্মিনাল এলাকার পল্টুনে। এ ঘটনায় অচেতন হয়ে অজ্ঞায় অবস্থায় চাঁদপুর সরকারী জেনারেল হাসপাতালে মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ছে,চাঁদপুর পৌরসভার স্টাফ মো: আরিফ হোসেন ওরফে রুবেল সরকার(৩৮),তার আত্বীয় মাহমুদা খানম(৩৫) ও মাহমুদার মেয়ে শশী আক্তার(২০)।

এ ঘটনা সম্পর্কে আহত-অচেতন রুবেল সরকারের পিতা চাঁদপুর পৌরসভার সাবেক প্যানেল চেয়ারম্যান আলী আহমেদ সরকার জানান,বৃহস্পতিবার দুপুরে তার ছেলে রুবেল ও তার নিকট আত্বীয় মাহমুদা খানম ও শশী আক্তার একটি যাত্রীবাহি লঞ্চ যোগে চাঁদপুরের উদ্দের্শে যাত্রা করে। পথিমধ্যে তারা ফেরিওয়ালা থেকে প্রান জুস ক্রয় করে প্রান করে। সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় তারা যাত্রীবাহি লঞ্চ থেকে অসুস্থ্য হয়ে বাসায় চলে যায় অন্যদের সহায়তায়। এরই মধ্যে তাদের সাথে থাকা মালামাল দুরবৃর্ত্তরা সুকৌশলে লুট করে নিয়ে যায়। বাসায় গিয়ে রাত ৯টায় তারা ৩জন গুরুত্বর অবস্থা থেকে অচেতন হয়ে অজ্ঞান হয়ে পড়ে। তাৎক্ষনিক তাদেরকে চাঁদপুর সরকারী জেনারেল হাসপাতালে এনে ভর্তি করা হয়। হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক মো: নোমান হোসেন তাদের উন্নত চিকিৎসার ব্যবস্থা করলেও গত ১৯ ঘন্টা পরও তাদের জ্ঞান ফিরেনি। শুক্রবার বিকেল ৪টায় অচেতন ৩ জনের জ্ঞান না ফেরায় তাদেরকে আরো উন্নত চিকিৎসার জন্য চাঁদপুর সরকারী জেনারেল হাসপাতালের চিকিৎসক ও আর এম ও আসিব চৌধুরী ঢাকা মেডিকেলে প্রেরন করা হয়েছে। এ ব্যাপারে নৌ-টার্মিনাল এলাকার সচেতন ব্যবসায়ী ও যাত্রীদের অভিযোগ চাঁদপুর নৌ-টার্মিনাল এলাকায় এক ধরনের অসাধু ফেরিয়ালাদের সাথে এখানকার দূরবৃর্ত্তদের গভীর সম্পর্ক রয়েছে। তারা এক জোট হয়ে এখানে যাত্রীদের এ ধরনের ঘটনা প্রায় ঘটিয়ে যাচেছ। তাদের ব্যাপারে আইন নিয়ন্ত্রনকারী সংস্থার পক্ষ থেকে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করা একান্ত প্রয়োজন বলে তারা মত প্রকাশ করেন।