চাঁদপুরে মার সাথে অভিমান করে যুবক গলায় ফাঁস দিযয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা

শাহরিয়ার খাঁন কৌশিক

চাঁদপুরে মায়ের সাথে অভিমান করে গলায় ফাঁস দিয়ে সুজন (২০) নামে এক যুবক আত্মহত্যার চেষ্টা করেছে।

শুক্রবার দুপুর দুইটায় চাঁদপুর শহরে ব্যাংক কলোনী এলাকায় কাদের মিজির বাড়িতে এই ঘটনাটি ঘটে।
ঘটনার সাথে সাথেই সুজনকে গুরুতর আহত অবস্থায় উদ্ধার করে চাঁদপুর সরকারি জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে আসে।
সুজনের অবস্থা বেগতিক দেখে কর্তব্যরত ডাক্তার আসিবুল হাসান চৌধুরী তাকে ঢাকায় রেফার করার নির্দেশ দেয়।

জানা যায়, সুজনের বাবা হারুনুর রশিদ তার মাকে ছেড়ে অন্যত্র বিয়ে করে চলে যায়। তারপর থেকেই সংসারের হাল ধরে তার মা লাবনী বেগম। মা লাবনীর বেগম অন্যের বাড়িতে ঝিয়ের কাজ করে এক ছেলে এক মেয়েকে পড়ালেখা ও পরিবারের খরচ চালাতে।
অভাব অনটনের সংসারে মা পরিবারের খরচ চালাতে হিমশিম খেয়ে তার ছেলে সুজন কে অন্যত্র কাজ করার তাগিদ দেয়।
শুক্রবার দুপুরে মা ও ছেলের সাথে বাকবিতন্ডার সৃষ্টি হয়। পরে সুজন মায়ের সাথে অভিমান করে ঘরের আড়ার সাথে ওড়না পেচিয়ে ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করে। সাথে সাথেই মা লাভলী বেগম ঘরে ঢুকেই তার ছেলেকে বাঁচানোর চেষ্টা করে।
হাসপাতালে নিয়ে আসার পর সুজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক দেখে ডাক্তার ঢাকা মেডিকেলে রেফার করলেও আর্থিক সংকটের কারণে তার মা তাকে ঢাকায় নিতে পারেনি। পরে হাসপাতালে বন সই দিয়ে ছেলেকে হাসপাতালের দ্বিতীয় তলায় পুরুষ ওয়ার্ডে ভর্তি করায়।
চাঁদপুর সরকারি হাসপাতালে মেডিকেল অফিসার আর এম ও হাসিবুল হাসান চৌধুরী জানায়, গলায় ফাঁস দেওয়ায় রুগী সুজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক। তাকে বাঁচাতে হলে লাইফ সাপোর্টে রাখা প্রয়োজন। তার মৃত্যুর ঝুঁকি শতকরা ৯০ শতাংশ। গলায় ফাঁস দেওয়ার কারণে শ্বাস নালিতে সমস্যা হয়েছে।