চাঁদপুরে নির্বাচনী পরর্বতী সহিংসতা*ভোট কেন্দ্রের টাকা ভাগভাটওয়ারা নিয়ে যুবলীগ-ছাত্রলীগ সংঘর্ষে ৩জনকে ছুরিকাঘাত আহত-২০

শাহরিয়ার খাঁন কৌশিক।।  চাঁদপুরে নির্বাচনি পরবতী সহিংসতা ভিচ্ছিন্ন ঘটনায় কমপক্ষে ২০জন আহত হবার খবর পাওয়া গেছে। সদর উপজেলার ৪নং শহমোহাম্মদপুর ইউনিয়নের কেতুয়া গ্রামে   ভোট কেন্দ্রের টাকা ভাগভাটওয়ারা নিয়ে যুবলীগ-ছাত্রলীগের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনায় ৩জনকে  ছুরিকাঘাত করা হয়েছে। আহতদের স্থানীয়রা উদ্ধার করে চাঁদপুর সরকারী জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করিয়েছে। গুরুত্তর আহত অবস্থায় ছুরিকাঘাত হওয়া ৩ জনকে কর্তব্যরত ডাক্তার ঢাকা মেডিকেল হাসপাতালে রেফার করে।

ঘটনাটি ঘটেছে ৪নং শহমোহাম্মদপুর ইউনিয়নের ৩নং ওয়ার্ড  কেতুয়া গ্রামের খাঁন বাড়ির সামনে বঙ্গবন্ধু ক্লাবের ভিতরে।
ওয়ার্ড যুবলীগের সহ সভাপতি কালাম খাঁন জানায়, একাদশ জাতীয় নির্বাচনে শহমোহাম্মদপুর ইউনিয়নের জাফর বাড়ী এলাকায় জোহড়া স্কুল কেন্দ্র পরিচালনা করার জন্য যুবলীগের নেতাদের খরচ বাবদ টাকা দেওয়া হয়।
কেন্দ্রে টাকা খরচ হওয়ার পরে কিছু টাকা উবৃত্ত থাকে।
বুধবার সকালে সেই টাকা থেকে ২০০ টাকা ৩নং ওয়ার্ড ছাত্রলীগের সাধারন সম্পাদক তোফায়েলকে দেওয়া হয়। টাকা কম দেওয়ায় তোফায়েল ক্ষিপ্ত হয়ে তার দলবল নিয়ে যুবলীগের নেতাকর্মীদের উপর হামলা চালায়। তারা সাইফুল খাঁন(৩০),মাসুদ(২৮) ও বাবলু(৩০)কে পেটে ছুড়িকাঘাত করে। এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে যুবলীগ ও ছাত্রলীগের মাঝে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ঘটনায় বেশ কয়েকজন আহত হয়েছে।

এদিকে নির্বাচনের পরেই বিএনপির নেতাকর্মীরা বাবুরহাট, কল্যানপুর ও সহরমালীতে হামলার ঘটনায় আওয়ামীলীগ নেতা শহিদুল্লা খাঁন(৬০),ছাত্রলীগের নেতা শাহরিয়ার কবির জয়(২০)সহ প্রায় ২০ জন আহত হবার খবর পাওয়া গেছে। এছাড়া বিএনপির বিক্ষুব্ধ নেতা কর্মীরা কল্যানপুরের আওয়মীলীগের অফিস ভাংচুর করে আগুন লাগিয়ে দেয়।

এই ঘটনায় খবর পেয়ে চাঁদপুর মডেল থানার এসআই ফজলুর রহমান সঙ্গীয় পুলিশ ফোর্স নিয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থীতি নিয়ন্ত্রনে আনেন।