চাঁদপুরে চলন্ত ট্রেন থেকে যাত্রী ছিটকে পড়ে দুই পা হারালো

চাঁদপুর-লাকসাম রেল লাইনের পাশে হাজার অবৈধ স্থাপনা গড়ে উঠেছে। রেল লাইন ঘেঁষে গাড়ি রেখে মুরগি দোকানে উঠানোর সময় চাঁদপুরগামী চলন্ত ডেমু ট্রেনের দরজার পাশে থাকা যাত্রী নাছির (৪০) এর শরীরে আঘাত লেগে ছিটকে নিচে পড়ে গিয়ে দু পা হারানো।
ঈদের দিন দুপুরে চাঁদপুর শহরের বঙ্গবন্ধু রোড দর্জি ঘাট এলাকায় গাজী বয়লার হাউজ দোকানের সামনে এই দুর্ঘটনাটি ঘটে।
গুরুতর রক্তাক্ত জখম অবস্থায় আহতকে স্থানীয়রা উদ্ধার করে চাঁদপুর সরকারি জেনারেল হাসপাতালে এনে ভর্তি করায়।
হাসপাতালের কর্তব্যরত ডাক্তার তার অবস্থা আশঙ্কাজনক দেখে ঢাকা মেডিকেল হাসপাতালে রেফার করেন।
গুরুতর আহত নাসির বড় স্টেশন মাছ ঘাটের একজন কুলি।
দুর্ঘটনায় তার দুটি পা ভেঙ্গে যায় ও শরীরের বিভিন্ন জায়গায় গুরুতর আঘাতপ্রাপ্ত হয়।
আর্থিক সংকটে হতদরিদ্র কুলি নাছির চিকিৎসার অভাবে ঢাকা না যেতে পেরে হাসপাতালের বিছানায় ছটফট করছে।
ঘটনার পরেই রেল লাইনের পাড়ে থাকা গাজী বয়লার হাউজ এর মালিক এইচ এম হারুনুর রশিদ সোহেল দোকান বন্ধ করে তার গািিড়ট নিয়ে চলে যায়।

ঘটনাস্থলে থাকা প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, চাঁদপুর-লাকসাম রেলপথের দুই পারে হাজারো অবৈধ স্থাপনা তৈরি করে প্রভাবশালীরা ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছে। রেলের পাড় ঘেষে অবৈধ দোকান গুলো উচ্ছেদ না করায় এই ধরনের দুর্ঘটনা প্রতিনিয়তই ঘটছে। ঘটনার দিন দুপুরে গাজী বয়লার হাউজ এর দোকান মালিক রেলের পারে গাড়ি রেখে মুরগি আনলোড করার সময় রেলের যাত্রী পায়ে লেগে ছিটকে পড়ে যায়। অল্পের জন্য প্রাণে রক্ষা পেলেও যাত্রীর নাসিরের দুটি পা ভেঙে গেছে। এর জন্য দায়ী রেলের পাড় অবৈধ দোকান ব্যবসায়ী গাজী বয়লার হাউজ এর মালিক সোহেল। ঘটনাটি ধামাচাপা দেওয়ার জন্য এলাকার কিছু দালাল চক্ররা উৎকোচের বিনিময়ে দোকান মালিক সোহেলকে ঘটনাস্থল থেকে সরিয়ে দেয়।
আহত নাসির জানায়, রেল লাইনের পাড়ে মুরগির গাড়ি রাখায় ট্রেনের সাথে আঘাত লাগে। এ সময় দরজার পাশে থাকায় গাড়ি সাথে আঘাত লেগে নিচে পড়ে গিয়ে এই দুর্ঘটনাটি ঘটে।
ঘটনার পরে অজ্ঞান হয়ে গেলে স্থানীয় লোকজন উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে আসে। টাকার অভাবে চিকিৎসার খরচ না চালাতে পেরে নিজেই কষ্ট পাচ্ছি।
ঘটনায় দোষীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি জানাচ্ছি।