চাঁদপুরে গ্রামীনের টাওয়ারের নামে প্রতারণা করে টাকা আত্মসাৎ ।।প্রতারক আটক

শাহরিয়ার খান কৌশিক

চাঁদপুরে গ্রামীণফোনের টাওয়ার স্থাপন করার প্রলোভন দেখিয়ে সাধারণ মানুষের কাছ থেকে টাকা আত্মসাৎ করেছে এক প্রচারক।
প্রতারণা করার অপরাধে প্রতারক চক্রের সদস্য ফাইজুল ইসলাম (২২)কে স্থানীয়রা আটক করে পুলিশের কাছে সোপর্দ করে।
বৃহস্পতিবার বিকেলে চাঁদপুর সদর উপজেলা ১২নং চান্দ্রা ইউনিয়নের দক্ষিণ বলিয়া গ্রামের চেয়ারম্যান রোড ইউনিয়ন যুবলীগের যুগ্ন আহবায়ক সালাউদ্দিন মিয়া বাবুর বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে।

স্থানীয় লোকজন প্রতারককে আটক করে ইউপি চেয়ারম্যান খান জাহান আলী পাটোয়ারীর কাছে হস্তান্তর করে।পরে চাঁদপুর মডেল থানার এসআই সিরাজুল ইসলাম সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে ইউপি কার্যালয় থেকে প্রতারক ফাইজুল ইসলামকে আটক করে থানায় নিয়ে আসে।
আটক ফাইজুল ইসলাম কিশোরগঞ্জ জেলার নিকলী থানার কারপাশা ইউনিয়নের সিরাজুল ইসলামের ছেলে।

জানা যায় প্রতারক চক্রের হোতা ফাইজুল ইসলাম গত তিন দিন পূর্বে চাঁদপুর শহরের বড় স্টেশন মদিনা হোটেলে এসে অবস্থান করে। সে চান্দ্রা ইউনিয়নের বেশ কয়েকটি গ্রামে গিয়ে অসহায় বেশ কয়েকজন মানুষের জায়গায় গ্রামীণফোনের টাওয়ার স্থাপন করবে বলে জানায়। ২০ বছরের কন্টাকে ২৮ লাখ টাকা চুক্তিতে গ্রামীণফোন থেকে পুরো টাকা একসাথে দেওয়ার প্রলোভন দেখিয়ে সাধারণ মানুষদের কাছ থেকে প্রতারণা করে হাজার হাজার টাকা হাতিয়ে নিয়েছে।
বৃহস্পতিবার বিকেলে চান্দ্রা ইউনিয়নের যুবলীগের সিনিয়র যুগ্ন আহবায়ক মোঃ সালাউদ্দিন মিয়া বাবুর কাছে গিয়ে তার বাড়িতে মোবাইলের টাওয়ার লাগানোর নামে ফরম ফিলাপের কথা বলে সাড়ে চার হাজার টাকা চায়। এসময় সালাউদ্দিন বাবুর সন্দেহ হলে প্রতারক ফাইজুল ইসলাম কে আটকে রেখে জিজ্ঞাসা করে। জিজ্ঞাসাবাদে ফাইজুল ইসলাম তার প্রতারণার কথা অটপটে স্বীকার করে। এর কিছুক্ষণ পরই প্রতারণা করে সাধারন মানুষদের কাছ থেকে টাকা হাতিয়ে নেওয়ার ঘটনায় বেশ কয়েকজন লোক আটকের ঘটনা জানতে পেরে ইউনিয়ন পরিষদে এসে চেয়ারম্যান কে জানান।
পরে পুলিশ এসে প্রতারক ফয়জুল ইসলামকে আটক করে থানায় নিয়ে যায়।
এ ঘটনায় প্রতারণার শিকার রুহুল আমিন শেখ বাদী হয়ে চাঁদপুর মডেল থানায় একটি প্রতারণা মামলা করেন।