চাঁদপুরে কাভারভ্যানসহ জাটকা ইলিশ জব্দ, আটক ৩

শাহরিয়ার খান কৌশিক,

১ মার্চ থেকে ৩০শে এপ্রিল পর্যন্ত ইলিশের পোনা জাটকা সংরক্ষনে চাঁদপুরের পদ্মা-মেঘনা নদিতে জাল ফেলা নিষিদ্ধ ঘোষনা করেছে সরকার।
চাঁদপুর জেলার মতলব উত্তর উপজেলা ষাটনল থেকে এবং হাইমচর উপজেলা চরভৈরবী হতে লক্ষিপুর জেলার চর আলেকজান্ডার পযর্ন্ত ১০০ কিলোমিটার নদি এলাকা সকল প্রকার জাল ফেলা ও মাছ ধরা নিষিদ্ধ করেছে।
মার্চ এপ্রিল দুই মাস জাটকা নিধন আহরণ ও পরিবহন বন্ধ ঘোষণা করেছে সরকার। সরকারকে বৃদ্ধাঙ্গুলি প্রদর্শন করে অসাধু ব্যবসায়ীরা জাটকা মাছ ক্রয় করে নদীপথে ও সড়ক পথে পরিবহন যোগে ঢাকা সহ বিভিন্ন জায়গায় জাটকা ইলিশ পাচার করছে। চাঁদপুর মডেল থানা পুলিশ বিশেষ অভিযান চালিয়ে কাবার ভ্যান বোঝাই জাটকা ইলিশ মাছ জব্দ করতে সক্ষম হয়েছে।
মঙ্গলবার রাতে চাঁদপুর শহরের ওয়ারলেস বাজার এলাকায় অভিযান চালিয়ে ঢাকা মেট্রো ন ১৬-২৫ ৮৮ কাভার ভ্যান পিকআপ বোঝাই জাটকা ইলিশ জব্দ করে।
এ সময় পুলিশ গাড়ি চালক, ক্রেতা ও বিক্রেতা সহ তিন জনকে আটক করতে সক্ষম হয়েছে। আটককৃতরা হলো, গাড়ি চালক লক্ষীপুর জেলার গজারিয়া এলাকার সেকান্দর ছৈয়ালের ছেলে তসলিম ছৈয়াল(৪০) জাটকা মাছ বিক্রেতা চাঁদপুর হাইমচর উপজেলার জালিয়ার চর এলাকার তারা মিয়ার ছেলে জাহাঙ্গীর হোসেন(২৮) ও মাছের ক্রেতা ঢাকা যাত্রাবাড়ী মান্নান মোল্লার ছেলে শহীদ মোল্লা(৩৫)।
চাঁদপুর মডেল থানা রেজাউল করিম জানায়, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার চাঁদপুর সদর সার্কেল জাহেদ পারভেজ চৌধুরী কাছে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে একটি খবর আসে হাইমচর থেকে কাভার ভ্যান বোঝাই জাটকা ইলিশ ঢাকায় পাচার হচ্ছে। এই সংবাদের ভিত্তিতে সদর সার্কেল জাহেদ পারভেজ চৌধুরীর নির্দেশে ওয়ারলেস বাজার এলাকায় পুলিশ অবস্থান করে জাটকা বোঝাই পিকআপ গাড়ি আটক করতে সক্ষম হয়। জব্দকৃত মাছ সহ আটক তিনজনকে থানায় নিয়ে আসা হয়।
তাদের বিরুদ্ধে মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে বলে জানায়।