চাঁদপুরের ২২ হজ্বযাত্রী প্রতারণার শিকার

স্টাফ রিপোর্টার

ট্রাভেলস এজেন্সীর প্রতারণার কারণে এবার হজ্বে যেতে পারেননি চাঁদপুরের ২২ জন হজ্বযাত্রী। চাঁদপুর শহরের মোল্লা হজ্ব ট্রাভেলসের বিরুদ্ধে এমন অভিযোগ উঠেছে। গতকাল বৃহস্পতিবার সকাল থেকে চাঁদপুর শহরের কালীবাড়ি মন্দিরের বিপরীত পাশে মোল্লা হজ্ব ট্রাভেলসের অফিসে হজ্বযাত্রী ও তাদের আত্মীয়স্বজনের ভীড় দেখা গেছে।

প্রতারিত হজ্বযাত্রীরা জানান, মোল্লা হজ্ব ট্রাভেলস এজেন্সী নামে এ প্রতিষ্ঠানটি হজ্বে গমনে ইচ্ছুক ব্যক্তিদের কাছ থেকে জনপ্রতি সাড়ে তিন লাখ টাকা করে নেয়। এদের মধ্যে ১৭ জনের ভিসা হয়েছে জানিয়ে ফ্লাইট করার জন্যে ১৭ জনকে সোমবার ঢাকায় নিয়ে যাওয়া হয়। মোল্লা হজ্ব ট্রাভেলসের প্রশিক্ষক মুফতি মোঃ শাহাদাত হোসেন কাসেমীর সাথে ওই ১৭ জন বর্তমানে ঢাকা কাকরাইল মসজিদে অবস্থান করছেন বলে জানা গেছে। ট্রাভেলস এজেন্সির পক্ষ থেকে জানানো হয়েছিল সোমবার রাতে তাদের ফ্লাইট হবে। কিন্তু শেষ পর্যন্ত হজ্বযাত্রীরা জানতে পারেন তাদের পাসপোর্টে সৌদি আরবের ভিসাই লাগেনি। ট্রাভেলসের পরিচালক মোঃ মাসুদ হোসেন বর্তমানে সৌদি আরবে আছেন। হজ্বযাত্রী ওয়ালী উল্লাহ বলেন, আমি ও আমার স্ত্রী, আমার পার্শ্ববর্তী তিনজনসহ আমরা পাঁচজন যেতে পারি নাই, এ কথা বলেই তিনি কেঁদে দেন। এ প্রতারণার জন্যে আমি তাদের বিচার চাই। আমরা ঢাকায় এ ট্রাভেলসের বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ করেছি। এছাড়া শামসুন্নাহার, স্বামী মৃত মুক্তিযোদ্ধা মোঃ হাসান সাজ্জাদ, সাং বিষ্ণুপুর, চাঁদপুর সদরও এ প্রতিষ্ঠানের প্রতারণার শিকার হয়ে এবার তাঁর হজ্বে যাওয়াটা অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে।

এ বিষয়ে মোল্লা হজ্ব ট্রাভেলসের চাঁদপুর জেলা প্রতিনিধি মোঃ শাহজাহানের মুঠোফোনে কথা বলতে একাধিকবার চেষ্টা করেও পাওয়া যায়নি।