চাঁদপুরের রামপুরে ৫০০বছরের প্রাচীন মসজিদটি সংরক্ষণের কাজ শুরু

শাহরিয়ার খাঁন কৌশিক।। চাঁদপুর সদর উপজেলাধীন অালোচিত সেই রামপুর ইউনিয়নের ছোট সুন্দর গ্রামের ৫০০ বছর পুরনো প্রাচীন মসজিদটি সংরক্ষণের কার্যক্রম শুরু হয়েছে।
২৩ অক্টোবর মঙ্গলবার দিনব্যাপী এ নিয়ে ব্যাপক কার্যক্রম পরিচালনা করেন সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয় প্রত্নতত্ত্ব অধিদপ্তরের চট্টগ্রাম বিভাগের অাঞ্চলিক পরিচালক ডঃ মোঃ অাতাউর রহমানের নেতৃত্বে ৫ সদস্যের প্রতিনিধি দল।
এ সময় তাঁর সাথে থাকা এ প্রতিনিধি দলের অন্য সদস্যরা হলেন,উপ সহকারী প্রকৌশলী মোঃ রফিকুল ইসলাম,সিনিয়র নকশা অঙ্কনকারী মোঃ সিরাজুল ইসলাম,সার্ভেয়ার মোঃ জামাল অাহমেদ,অালোক চিত্রকার মোঃ নুরুজ্জামান।প্রতিনিধি দলটি সকাল ১১ টা হতে ১ টা পর্যন্ত রামপুর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান অাল মামুন পাটওয়ারীকে সাথে নিয়ে মসজিদটি ঘুরে দেখেন ও বিভিন্ন বিষয়ে মাফঝোঁক করেন।পরে মধ্যহ্ন ভোজ শেষে এ প্রতিনিধি দল জেলা প্রশাসক মোঃ মাজেদুর রহমান খানের প্রতিনিধি অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক(সার্বিক) মোহাম্মদ শওকত ওসমানের সাথে মতবিনিময় করেন এবং প্রশাসনিক মন্ত্রণালয়ের নির্দেশনা মোতাবেক সংরক্ষিত পুরাকীর্তি ঘোষণার জন্য ভূমি তফসিল সংক্রান্ত বিষয়ে সিদ্ধান্ত গ্রহন করেন।এ সময় উপস্থিত ছিলেন,অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক(রাজস্ব) জামাল হোসেন,চাঁদপুর প্রেস ক্লাব সভাপতি ইকবাল হোসেন পাটোয়ারী।সভায় সিদ্ধান্ত হয় বৃহস্পতিবার সকালে জেলা প্রশাসনসহ নেতৃবৃন্দ রামপুরের ওই মসজিদ প্রাঙ্গনে যাবেন ও সংরক্ষণের কাজ দ্রুত এগিয়ে নিবেন।পরে এই প্রতিনিধি দল বিকালে চাঁদপুর সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা কানিজ ফাতেমার সাথে এই সংক্রান্ত বিষয়ে মতবিনিময় করেন।এ সময় রামপুর ইউনিয়নের ছোট সুন্দর মসজিদটির ঐতিহাসিক গুরুত্ব থাকায় এটি সম্পূর্ন অাগের রূপে ফিরিয়ে দেওয়া সম্ভব বলে মন্তব্য করেন সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয় প্রত্নতত্ত্ব অধিদপ্তরের চট্টগ্রাম বিভাগের অাঞ্চলিক পরিচালক ডঃ মোঃ অাতাউর রহমান।
ৃউল্লেখ্য,৫ নং রামপুর ইউনিয়নের ছোটসুন্দর গ্রামের তালুকদার বাড়ীর সম্মুখবাগে প্রায় ৫০০ বছর পূর্বে ধারনামতে সুলতানি আমালে নির্মিত ১ গুম্ভুজ বিশিষ্ট মসজিদের সন্ধান পাওয়া গেছে। মসজিদটি ১ গুম্ভুজ বিশিষ্ট এবং মসজিদটি চিরাচরিতভাবে পূর্বমুখী অবস্থায় আছে। মসজিদটির দেয়ালঘেষে চারপাশে ৪ টি ছোট মিম্বার রয়েছে, বাহিরের দৈর্ঘ্য (উত্তর-দক্ষিণ) মিম্বারসহ ১৬ ফুট এবং বাহিরের প্রস্থ (পূর্ব- পশ্চিম) ১৫ ফুট। মসজিদটির ভিতরের দৈর্ঘ্য ৮ ফুট ১০ ইঞ্চি এবং প্রস্থ ৭ ফুট ৩ ইঞ্চি। মসজিদটির ১টি মেহরাব রয়েছে এবং দেয়ালে ছোট ছোট কয়েকটি খোঁপ রয়েছে। ধারনামতে পুরো মসজিদটি পোড়া ইট,বালি, চুনা এবং ছুরকী দিয়ে নির্মিত হয়েছে।