খোলা আকাশের নিচে পরিবার নিয়ে জিবন যাপন করছে এক ইউপি সদস্য

মো.শিমুল হাছান.
খোলা আকাশের নিচে পরিবার সদস্যদের নিয়ে মানবেতর জিবন যাপন করছে ইউপি সদস্য আমেনা বেগম। র্দীঘ সময় ধরে এই মানবেতর জীবন যাপন করে অসুস্থ হয়ে পড়েছে পরিবারে বেশির ভাগ সদস্যরা।
নিজে জনপ্রতিনিধি হয়েও সঠিক বিচার থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন তিনি। শত বছরের বসত ভিটা ছেড়ে বসত করতে হচ্ছে গরুর ঘরে। এই মধ্যযুগী বরবরতার শিকার হচ্ছেন উপজেলার ১৫নং রুপসা ইউনিয়নরে ৮নং ওয়ার্ডের বারপাইকা গ্রামের সংরক্ষিত আসনের ইউপি সদস্য আমেনা বেগম ও তার পরিবারের সদস্যগণ ।
সরজমিনে গিয়ে জানাযায়, র্দীঘ দিন ধরে শুশুরের বসত ভিটায় বসবাস করে আসছে। তাদের পারিবারিক সমস্যা কে কেন্দ্র করে বসত ভিটার উপর নিষেধাজ্ঞা ঘর থেকে বের করে দিয়েছেন যানান বাড়ির লোকজন। বর্তমানে নিজের বসত ভিটা ছেড়ে গরুর ঘরে থাকতে দেখা যায় তাদের। এনিয়ে জনমনে প্রশ্ন একজন জন প্রতিনিধির যদি হয় এমন অবস্থা হয় আমাদের সাধারন মানুষের কি হবে?
এ বিষয়ে ইউপি সদস্য আমেনা বেগম প্রতিনিধি কে বলনে, গত কয়েকদিন পূর্বে মোস্তাফা বেপারী তার ছেলেরা সহ লাঠিয়াল বাহীনি দিয়ে জোর পূর্বক বেআইনিভাবে বসত ভিটার ঘর থেকে বের করে দেয়। আমাদের বলে এই বসত ঘরে উপরে নাকি নিষেজ্ঞা দেওয়া হয়েছে। প্রায় রাতে তারা আমাদের ঘরের উপরে ইট পাটকেল মারেত। গত কয়েকদিন আগে তারা আমার উপর হামলা প্রর্যন্ত করেছে। এখন বর্তামানে শিশু, বৃদ্ধাসহ পরিবারের সকলে খোলা আকাশের নিছে বসবাস করে আসছি। প্রসাশনের কাছে আপনাদের মধ্যদিয়ে আমার অকুল আবেদন এই মধ্যযোগি বর্বরতা থেকে আমাদের রক্ষা করুন।
অভিযুক্ত মোস্তাফা বেপারী বলেন, পত্রিক সুত্রে এই ঘর ভিটা মালিক আমি । তাই আদালতের নিষেধাজ্ঞা দিয়েছি।
এবিষয়ে থানা অফিসার ইনর্চাজ আবদুর রকিব বলেন, ঘরথেকে বের করে দেওয়াটা দুঃখ জনক ও অমানবিক। বিষয়টি আমি তদন্ত করে দেখবো।