কোনো অনাকাঙ্ক্ষিত পরিস্থিতির শিকার হলে ৯৯৯ নাম্বারে ফোন করবে

ট্রাফিক আইন, ইভটিজিং ও সোস্যাল মিডিয়া সম্পর্কে ছাত্র-ছাত্রীদের সচেতনতা করার লক্ষ্যে চাঁদপুর জেলা পুলিশের উদ্যোগে বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে মুক্ত আলোচনা অব্যাহত রয়েছে। গতকাল সভা করা হয় চাঁদপুর শহরের পুরাণবাজার মধুসূদন উচ্চ বিদ্যালয়ে। গতকাল ১১ জুলাই বেলা ১১টায় বিদ্যালয়ের পৃথক দুটি কক্ষে বিপুল সংখ্যক ছাত্র-ছাত্রী নিয়ে এ মুক্ত আলোচনা অনুষ্ঠিত হয়। এতে উপরোক্ত বিষয়ের উপর শিক্ষার্থীদের বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর এবং এর থেকে প্রতিকার বিষয়ে তুলে ধরে বক্তব্য রাখেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) মোঃ জাহেদ পারভেজ চৌধুরী।

শিক্ষার্থীদের প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, একটি দুষ্ট চক্র দেশকে অস্থিতিশীল করতে সোস্যাল মিডিয়ায় গুজবের আশ্রয় নিয়েছে। এদের ব্যাপারে সজাগ থাকতে হবে। এ ব্যাপারে পুলিশ প্রশাসন তৎপর রয়েছে। বিশেষ করে সোস্যাল মিডিয়ায় যে কোনো গুজব থেকে নিজেদের নিরাপদ রাখতে হবে। এ ধরনের কোনো পোস্টে লাইক, কমেন্ট ও শেয়ার করা থেকে বিরত থাকবে হবে।

ইভটিজিং বিষয়ে তিনি বলেন, তোমাদের সাথে কেউ ইভটিজিং করলে তোমারা তা দলগতভাবে প্রতিবাদ করবে এবং সাথে সাথে ৯৯৯ নাম্বারে ফোন দিবে। ৫ মিনিটের মধ্যে পুলিশ এসে উপস্থিত হবে। তোমরা কখনোই নিজেদের অসহায় ভাববে না। তোমাদের পাশে অভিভাবক, শিক্ষক এবং প্রশাসন রয়েছে। পাশাপাশি তোমরা নিজেরাও কোনো প্রকার অপরাধে জড়াবে না।

তিনি আরও বলেন, ট্রাফিক আইন সম্পর্কে চালক ও যাত্রীর পাশাপাশি পথচারীদের সচেতন হতে হবে। আমাদের ট্রাফিক আইন মেনে চলতে হবে। ট্রাফিক আইন সম্পর্কে তোমাদেরও ধারণা থাকতে হবে। ট্রাফিক আইন ভঙ্গ করা যাবে না। তোমরা যদি ট্রাফিক আইন না জানো তবে চালকের ভুল ধরতে পারবে না, নিজেদের ভুলও দেখবে না।

অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন চাঁদপুর মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ নাসিম উদ্দিন ও মধুসূদন উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক গনেশ চন্দ্র দাস। উপস্থিত ছিলেন পুরাণবাজার পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ মোহাম্মদ শহীদ হোসেন, এসআই জাহাঙ্গীর আলম, সহকারী প্রধান শিক্ষক গোলাম সরোয়ার, শিক্ষক গোপাল সাহা, দিলীপ দেবনাথ, ওয়াহিদুর রহমান লাবু, নাজনিন সুলতানা প্রমুখ।