কচুয়ায় প্রবাসীর স্ত্রী ও শাশুড়ীকে মারধর করে ঘরে অবরুদ্ধ॥ পুলিশের হস্তক্ষেপে উদ্ধার

প্রতিনিধি ঳   কচুয়া উপজেলার কচুয়া উত্তর ইউনিয়নের নোয়াদ্দা ব্যাপারী বাড়ির প্রবাসীর স্ত্রী ও শাশুড়ীকে মারধর করে ঘরে অবরুদ্ধ করে রাখে প্রবাসীর ভাই ও বোনেরা। বুধবার (২৭ জুন) প্রবাসী ওসমান গনির স্ত্রী সৌরবী বেগম ও তার মা নাছিমা বেগমকে মারধর করে তার দেবর মোঃ হোসেন ও ননদরা ঘরে আটক করে রাখে। সংবাদ পেয়ে কচুয়া থানায় কর্মরত পুলিশের সাব-ইন্সপেক্টর (এসআই) দোলন সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে ওই দিন বিকেলে ঘটনা স্থলে পৌছে তাদেরকে উদ্ধার করে। পুলিশ ঘটনা স্থলে পৌছলে সৌরবীর দেবর হোসাইন ও ননদ আকলিমা এবং হাওয়া বেগম পালিয়ে যায়। প্রবাসী ওসমানের ইচ্ছা অনুযায়ী তার বাবা আঃ মজিদ মুক্তার, মা হোসনেআরা বেগম ও বাড়ীর অনান্যদের সহযোগিতায় সৌরবী ও তার মাকে চান্দিনা উপজেলার কৈকুড়ী গ্রামে সৌরবীর পিতার বাড়িতে পাঠিয়ে দেওয়া হয়। এসময় পুলিশ, স্থানীয় শালীসী আঃ রব প্রধান, মোঃ আউয়াল, আক্তার আলীসহ এলাকার গন্যমান্য ব্যাক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন।
এদিকে সৌরবীর শ্বশুর অসুস্থ থাকায় তার শ্বাশুড়ী হোসনেআরা বেগম ঘটনার সতত্যা স্বীকার করে বলেন, আমার ছেলে ওসমান সংসারে কোন টাকা পয়সা না দেওয়ার কারনে ছোট ছেলে হোসেনের সাথে সৌরবীর কথাকাটাকাটির সময় তাকে সামান্য আঘাত করেছে।
প্রসংগত সৌরবীকে তার স্বামীর অবর্তমানে তার দেবর মোঃ হোসেন, ননদ হাওয়া বেগম ও আকলিমা বেগম প্রায়ই মারধর করত। এসমস্ত ঘটনায় সৌরবী ইতি পূর্বেও কচুয়া থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন।
ছবিঃ প্রবাসীর স্ত্রী ও শাশুড়ীকে উদ্ধারের সময় এলাকার গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গসহ পুলিশের বৈঠকের একাংশ।