আজ পবিত্র ঈদে মিলাদুন্নবী (দঃ)

এএইচএম আহসান উল্লাহ

আজ ১২ রবিউল আউয়াল, ১৪৪১ হিজরি, মোতাবেক ১০ নভেম্বর রোববার পবিত্র ঈদে মিলাদুন্নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম। হিজরি সনের তৃতীয় মাসের নাম রবিউল আউয়াল। ইসলামের ইতিহাসে এ মাসের গুরুত্ব অপরিসীম। রবিউল আউয়াল মাসের ১২ তারিখ সুবহে সাদেকের সময়টুকু বিশেষ গৌরবময় ও মর্যাদাপূর্ণ। কেননা এ সময়েই বিশ্ব মানবতার মুক্তির দূত হযরত মুহাম্মদ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম মা আমিনা (রাঃ)র কোল আলোকিত করে দুনিয়ায় আগমন করেছিলেন। তাঁকে সৃষ্টি না করলে আসমান, জমিন, চন্দ্র, সূর্য, গ্রহ, নক্ষত্র এমনকি ইহকাল-পরকাল ও উহার মধ্যস্থিত কোনো কিছুই সৃষ্টি করা হতো না। সেদিন দুনিয়ার সবাই এমনকি গাছপালা, তরুলতা, পশু-পাখি, জীব-জন্তু পর্যন্ত মেতে উঠেছিলো মহা উৎসবে ‘রাহমাতুলি্লল আলামিন মারহাবা! মারহাবা!’ বলে। শুধুমাত্র দুঃখ পেয়েছে অভিশপ্ত ইবলিস শয়তান। সে প্রিয় নবীর মিলাদ তথা আগমনে খুব কষ্ট পেয়ে ‘জাবালে আবু কুবাইস’ তথা আবু কুবাইস নামক পাহাড়ের সাথে নিজের মাথা ঠুকেছে। সেই ইবলিস মালউনের প্রেতাত্মারা আজো আছে, কিয়ামত পর্যন্ত থাকবে; যারা ঈদে মিলাদুন্নবী (দঃ)-এর বিরুদ্ধাচরণ করে নানা ফতোয়াবাজি করবে।

মহান আল্লাহ্ তায়ালার পক্ষ হতে দুনিয়াবাসীর প্রতি যতো দয়া অনুকম্পা প্রেরিত হয়েছে, হুজুর (দঃ)-এর জন্ম তার মধ্যে সর্বশ্রেষ্ঠ। নবীর জন্ম তথা মিলাদের বর্ণনায় পরিপূর্ণ হয়েছে হাদিস গ্রন্থসমূহের বিরাট অংশ। কম্পাসের কাঁটা যেভাবে উত্তর-দক্ষিণ মেরু বরাবর সোজা না হয়ে স্থির হয় না তেমনি প্রকৃত আশিক হৃদয় হুজুর (দঃ)-এর জন্ম দিনে তাঁর জন্মকথা না শুনে স্থির থাকতে পারে না। মিলাদের আলোচনায় তার হৃদয়ে বয়ে দেয় খুশির জোয়ার আর আনন্দের প্লাবন। তাইতো বিশ্ববাসী আজ পালন করবে ঈদে মিলাদুন্নবী বা হুজুর (দঃ)-এর জন্মের খুশির দিন।

মিলাদুন্নবী (দঃ) উদ্যাপন অনুষ্ঠানে কোরআন তেলাওয়াত, হামদ, নাত, সালাত-সালাম, মিলাদ-কিয়াম, জশনে জুলুছ, ওয়াজ, বক্তৃতা এসবই উত্তম আমল এবং নবীপ্রেমের বহিঃপ্রকাশ। এর সাথে রাসূলুল্লাহ (দঃ)-এর আদর্শ গ্রহণের মনোবৃত্তি তৈরি করে সর্বত্র তা বাস্তবায়নের মাধ্যমে শান্তিময় সমাজ প্রতিষ্ঠায় ব্রত হওয়া প্রকৃত মু’মিনের পরিচায়ক। মুসলিম বিশ্বে বছরের সর্বদিনের চেয়ে নবীর জন্ম দিনটির গুরুত্ব সমধিক। তাই পৃথিবীর সকল দেশের মতো বাংলাদেশে এবং চাঁদপুরের সকল গ্রাম-গঞ্জে, শহরে, স্কুল-কলেজ ও মাদ্রাসা-মসজিদে এই পবিত্র দিনটি ঈদে মিলাদুন্নবী (দঃ) হিসেবে উদ্যাপিত হয়ে থাকে।

এ দিবস উপলক্ষে আজ সরকারি ছুটির দিন। বাংলাদেশের অফিস-আদালত, শিক্ষা প্রতিষ্ঠানসমূহ আজ বন্ধ থাকবে। তবে মাদ্রাসাগুলোতে আজ ঈদে মিলাদুন্নবীর তাৎপর্য নিয়ে অনুষ্ঠান করার নির্দেশনা দেয়া হয়েছে সরকারের শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের অধীন মাদ্রাসা শিক্ষা অধিদপ্তর থেকে। ঈদে মিলাদুন্নবী (দঃ) উদ্যাপন উপলক্ষে আজ চাঁদপুর শহরে জশনে জুলুছে ঈদে মিলাদুন্নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম অনুষ্ঠিত হবে। এছাড়া ইসলামিক ফাউন্ডেশন চাঁদপুর জেলা কার্যালয় নানা কর্মসূচি গ্রহণ করেছে। চাঁদপুর শহরে ডিসি অফিস সংলগ্ন চেয়ারম্যানঘাটা বায়তুল আমান জামে মসজিদে আজ বাদ ফজর থেকে হাম্দ-নাত পরিবেশন, আলোচনা ও মিলাদ মাহফিল অনুষ্ঠিত হবে এবং সকালে বর্ণাঢ্য র‌্যালি বের করা হবে।

এছাড়া দিবসটি উপলক্ষে চাঁদপুর শহরের গুরুত্বপূর্ণ স্থানে বিভিন্ন ইসলামী সংগঠন ও ইসলামিক ফাউন্ডেশন কালেমা খচিত পতাকা উড়িয়ে আলোকসজ্জার আয়োজন করবে বলে জানা গেছে।