হাজীগঞ্জে ছেলের হাতে পিতা খুন হয়েছেন

স্টাফ রিপোর্টার

হাজীগঞ্জে নেশার টাকা না পাওয়া নদীর পাড়ে ছেলে তাতে পিতা খুন হয়েছেন। ঘটনাটি গতকাল ৩ জুন রবিবার বিকেল সোয়া ৪ টায় পৌর এলাকার ১০ নং ওয়ার্ড রান্ধুনীমূড়া গ্রামে ঘটেছে।
জানা যায়, ঘটনার দিন ঘাতক ছেলে সুমন তার পিতার কাছে নেশার টাকা চেয়ে থাকে। আর ওই টাকা মাদকাসক্ত ছেলে না দেয়া ক্ষিপ্ত হয়ে উঠে ছেলে সুমন। বিকেলে ঘাতকের পিতা তাজুল ইসলাম কাঠ নৌকা দিয়ে বাড়ির আঙ্গিনা (নদীর পাড়ে) রেখে দেয়। নিহত তাজুসহ তার স্ত্রী কাঠ নিতে থাকে। ওই সময় সুমন তার মাকে বলে বটি’দা কোথায়, মা ছেলের প্রতি ক্ষিপ্ত হয়ে বলে যা ঘরে দেখ। এ বলেই সে ঘরের থেকে বটি’দা নিয়ে নদীর পাড়ে গিয়ে পিতা তাজুল ইসলামকে বলে টাকা চাইছি টাকা দিলিনা কেন। এমন কথা বলেই নিহত পিতাকে শরীরে বিভিন্ন স্থানে আঘাত করতে থাকে। এতে তাজুর একটি পা’পুরো আলাদা হয়ে যায়। ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয়। পিতাকে হত্যা করেই ঘাতক ছেলে এলাকায় থেকে লাপাত্তা হয়ে যায়। পরে স্থানীয়রা প্রথমে তাজুকে নিজ বাড়িতে পরে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করায়। সেখানে কতর্ব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষনা করে।
পরে খবর পেয়ে হাজীগঞ্জ থানা উপ-পরিদর্শক জয়নাল আবেদীন নিহতের মৃত দেহ হাসপাতাল থেকে থানায় নিয়ে আসে। আজ (সোমবার) ময়নাতদন্ত শেষে পরিবারে লোকদের কাছে লাশ হস্তান্তর করা হবে বলে থানা সূত্রে জানা গেছে।
ঘাতক সুমন দীর্ঘদিন ধরে শীর্ষ মাদক ব্যবসায়ী স্থানীয় ওয়ার্ড কাউন্সিলর খোরশেদ আলম ভূট্রোর সাথে ইয়াবা সেবন ও বিক্রয়ের সাথে জড়িত বলে অভিযোগ রয়েছে। এ বিষয়ে হাজীগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ মো. জাবেদুল ইসলাম বলেন, ছেলেটি অতিরিক্ত মাদকাসক্তের ফলে মানষিক ভারসাম্য হয়ে এ ঘটনা ঘটাতে পারে বলে প্রাথমিক ধারনা করছি।