আজ মঙ্গলবার, নভেম্বর ২১, ২০১৭ ইং, ৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৪

স্তন ( Breast )- এর পীড়া ও তার হোমিওপ্যাথিক চিকিৎসা !

Sunday, March 13, 2016

images (3)ডাঃ এস.জামান পলাশ

মেয়েদের স্তন ঊর্ধ্বাঙ্গের অংশ, বুকের উপর ২য় থেকে ষষ্ঠ রিব পর্যন্ত বিস্তৃত থাকে । তরুণীদের স্তন বর্তুলাকার হয় এবং এর বোটা ( Nipple ) ছোট ও গোলাপি বা হালকা খয়েরী রং হয় । বাচ্চা জন্মদানের পর স্তন বড় হয় এবং বোটা বড় ও কাল হয় । বোটা সন্নিহিত কাল / খয়েরী ত্বককে এরিওলা ( Areola ) বলে ।
অসংখ্য স্তনগ্রন্থি ( Mammary Gland ) চর্বি, ফাইব্রাস তন্তুর সমন্বয়ে ত্বকে স্তন গঠিত হয় । মেয়েদের স্তন হরমোনের প্রভাবে ১২ বছর থেকে বৃদ্ধি হয় ।

স্তনের পীড়া ঃ-

স্তনের ক্যান্সার ( Cancer of the breast )

সাধারণত স্তনের বোটাকে কেন্দ্র করিয়াই অধিকাংশ ক্যান্সার হয় । আক্রান্ত স্থান ক্রমান্বয়ে শক্ত হইয়া যায় । স্তনের বোটা নীচের দিকে বসিয়া যায় । যেমন কোন কোন কমলা লেবুর ছোলার উপরে মধ্যে মধ্যে বসিয়া যায় ঐরূপ আক্রান্ত স্থানের চামড়া মধ্যে মধ্যে বসিয়া যায় । হাত দ্বারা পরীক্ষার সময় ব্যথা অনুভুত হয় । যে পার্শ্বের স্তনে ক্যান্সার হয় ঐ পার্শ্বের বগল তলের লিম্ব গ্ল্যাণ্ডে স্তনের ক্যান্সার হইতে ক্যান্সার সেল
( Cancer cell ) ইনফিলট্রেশন হওয়ায় ঐগুলিও বৃদ্ধি পায় এবং হাতে শক্ত অনুভুত হয় ।images

স্তনের ক্যান্সারের শ্রেণী

** Calloid Cancer বা আঠাল ক্যান্সার, স্তনে শতকরা ১ ভাগ মাত্র । কোন সময় বিরাট আকার ধারণ করে, জিলাটিনের মত অস্বচ্ছ আকার নেয় ।

** Atrophic Scirrhus Cancer এও শতকরা ৫ ভাগ ।
[youtube https://www.youtube.com/watch?v=ugNZBEtsj28]

** শক্ত ধরণের ক্যান্সার Scirrhus Carcinoma এটাই বেশী দেখা যায় শতকরা ৬০ ভাগ । ডেলাটা বেশ শক্ত, তবে চারিধার অসমতল বা অনিয়মিত, প্রথম অবস্থায় সহজেই এদিক ওদিক নড়ান যায় পরে এটা এঁটে যায়
তখন নড়ান যায় না । স্তনের বোঁটা সংকুচিত হয়, পিছিয়ে যায়, উপরের চর্ম খসখসে ভাঁজযুক্ত হয়ে যায় ।

** নরম ধরণের Encephaloid Carcinoma শতকরা ১৩ ভাগ । স্তনে যে কোন গোটা বা দলা যদি দেখা যায় এবং চর্মের সঙ্গে বা নীচের কাঠামোর সঙ্গে যদি সামান্যতমও লেপটে থাকে অথবা স্তনের বোঁটা যদি স্বাভাবিক অবস্থার চাইতে সংকুচিত হয়, তাহলে অন্য কিছু প্রমাণিত না হওয়া পর্যন্ত ধরে নিতে হবে ক্যান্সার ।

স্তন ক্যান্সারের লক্ষণসমূহ
——————————

স্তনের ক্যান্সারের নিম্নবর্ণিত লক্ষণসমূহকে উল্লেখযোগ্য লক্ষণ হিসাবে বর্ণনা করা যায় । এটি বিশেষ করে দেখা যায় জীবনের পরিবর্তনের কালে বা ঋতু বন্ধের কালে । ৪০ থেকে ৫০ বছর বয়সের মধ্যে দেখা যায় । প্রথম স্তনের গ্ল্যাণ্ডসমূহ মধ্যে লাস্প আকারে দেখা যায় সেটা নরম বা শক্ত হতে পারে । প্রথমে কোন যন্ত্রণা থাকে না এইহেতু এটাকে অবহেলা করা হয় । কিন্তু এই প্রথমাবস্থাতেই আরোগ্য করবার উপযুক্ত সময় কারণ তখন ওটা উম্মুক্ত হয়নি, ক্ষত সৃষ্টি বা যন্ত্রণার সৃষ্টি হয়নি । এটি যত বৃদ্ধি পায় সংলগ্ন অংশ কুঞ্চিত হয়ে যায়, অন্য দিকে চারিপার্শ্ববর্তী বা গোলাকার স্থান স্ফীত দেখায়, শক্ত হয় অসমান দেখায় । ঐ স্ফীত ততদিন শক্ত থাকে যতদিন না ঐ স্থানটি উম্মুক্ত হয়ে ক্যান্সারের উৎপত্তিতে পরিণত হচ্ছে । ঐ উম্মুক্ত ক্ষত থেকে রক্তাভ জলের মত স্রাব হতে থাকে, ক্ষতের ধারগুলি মোটা মত ও উত্তেজনা সৃষ্টিকারী জ্বালাযুক্ত হয়, ক্ষত থেকে স্রাব অত্যন্ত দুর্গন্ধযুক্ত হয় । এর শেষ অবস্থায় বগলের গ্রন্থিসমূহ আক্রান্ত হয়, স্ফীত হয় এবং হাত থেকে আঙ্গুল পর্যন্ত ফোলে ও শক্ত হয় । যদি অস্থি আক্রান্ত হয় তা হলে রক্তাভ জলবৎ দুর্গন্ধ স্রাবসহ শ্বাসকষ্ট দেখা যায় । যদি হাত দিয়ে আক্রান্ত স্থানটি নড়ান না যায়। দৃঢ় হয়ে থাকে এবং ঐ প্রকার দুর্গন্ধ স্রাব দেখা যায় তখন জানতে হবে ষ্টার্ণাম অথবা রিবের অস্থি আক্রান্ত হয়েছে এবং আরোগ্যের সময় পেরিয়ে গেছে।IMG_20151010_202743_165

স্তনের চিকিৎসা ঃ-

এপিস মেল ( Apis Melifice ) <> ওভারির আক্রমণসহ স্তনের বোঁটা অন্তপ্রবিষ্ট, সিরাস ও উম্মুক্ত ক্যান্সার স্তনের । এর সাথে হুল বেধা ও জ্বালাকর, যন্ত্রণা বিশেষতঃ পুরাতন স্তন প্রদাহে যারা ভোগে, দুর্বল, উদরে খালিবোধসহ ক্ষুধাহীনতা । এর চরিত্রগত মুত্রলক্ষণ শ্রেষ্ঠ নির্দেশিকা ।

আর্স – আয়োড ( Ars – Iodatum ) <> ঠোঁটের এপিথেলিওমাতে ব্যবহার হয়, স্তনের যন্ত্রণাদায়ক ক্যান্সার ( সিরাস ) ক্ষত সৃষ্টি হতে আরম্ভ হলে ।

এষ্টিরিয়াস – রিউবেন্স ( Asterias Rubens ) <> যে সকল ব্যক্তি মোটা থলথলে ও যাহারা সাইকোটিক ধাতুর ব্যাক্তি তাহাদের উপর ইহার ক্রিয়া শীঘ্র প্রকাশিত হয় । স্ত্রীলোকদের স্তন ও বগলের গ্ল্যাণ্ড ফোলা, তাহাতে তীরবেঁধার মত বেদনা ; স্তনের ক্যান্সারের ও বাম স্তনের নিউর‍্যালজিয়ার ইহা ভাল ঔষধ । ইহাতে শরীরের বামদিকে অধিক আক্রান্ত হয় ।

বেলেডোনা ( Belladoma ) <> সিরাস শ্রেণীর শক্ত স্ফীতি, ক্যান্সারাস আলছার, স্পর্শে জ্বালা করে, ক্ষতের মুখে রক্তের চটা পড়ে কালচে হয়, পুঁজ খুব কম । ডাঃ জোন্স বলেছেন – স্তনের ক্যান্সারের বা টিউমারের যন্ত্রণা শয়নে বৃদ্ধি বিশিষ্ট লক্ষণ । এর যন্ত্রণা সবিরাম হঠাৎ আসে হঠাৎ যায় ।

 

ব্রোমিয়াম ( Bromium ) <> স্তনের সিরাস ক্যান্সার, মানসিক অত্যন্ত হতাসা, ঋতু বন্ধ হয়ে যায়, স্তন থেকে বগল পর্যন্ত ছুঁচ বেঁধা যন্ত্রণা, চাপ দেওয়া সহ্য করতে পারে না । শক্ত, অমসৃন টিউমার ডান স্তনে, চারিদিকে শক্ত ও দৃঢ়বদ্ধ ছুরি বেঁধা যন্ত্রণা, চাপনে ও রাত্রে বৃদ্ধি, গাত্র বর্ণ ছাই রঙের বা মাটির বর্ণের, বৃদ্ধিবৎ দেখতে, শীর্ণতা , গ্ল্যাণ্ডসমূহের ফোলা ও শক্তভাব । যখন নিম্ন চোয়ালের লিফ্ল্যাটিক গ্ল্যাণ্ড সমূহ পাথরের মত শক্ত হয়, এই ঔষধটি নির্দেশিত হয় ।

কার্বো এনিমেলিস ( Carbo Animalis ) <> ক্যান্সার প্রবণতা পরিপূর্ণভাবে দেখা যায় । স্তনের সিরাস ক্যান্সার দেখতে নীলচে ময়লাযুক্ত, লাল চর্ম, অথবা চর্মে লাল দাগ । জ্বালা এবং টেনে ধরা বোধ বগল পর্যন্ত, বগলের গ্ল্যাণ্ডসমূহ বড় ও শক্ত ।

কোনিয়াম ( Conium Maculatum ) <> আঘাতজনিত ক্যান্সার বা টিউমার তাহা – স্তনে জরায়ুতে বা পাকস্থলীতে হইলেও কোনিয়ামে উপকার হইবে । আঘাতজনিত কিম্বা অন্য কোন কারণ বশতঃ টিউমার ও কোনও প্রকার স্ফীতি যদি পাথরের মত শক্ত হয় এবং তথায় ছুচফোটার ব্যথা থাকে – কোনিয়মই তাহার প্রধান ঔষধ । ডানদিকের স্তনের টিউমার বা ফোলায় – কোনিয়াম অধিক কার্যকরী ( বামদিকের – সাইলিসিয়া ) এতদ্ভিন্ন – প্রতিবার রজঃস্রাবকালে যদি স্তন টাটায়, স্তনে বেদনা ও স্তন বড় হয়, তাহা হইলে কোনিয়াম বিশেষ উপকারী ।

অষ্টিলেগো ( Ustilago ) <> অতিরজঃ ও জরায়ুর রক্তস্রাবে অষ্টিলেগো মেডিস অতিশয় উপযোগী ঔষধ । কিন্তু আমার মনে হয় ( ন্যাস ), অষ্টিলেগোর স্রাব জরায়ুর দুর্বলতা বা শৈরিক রক্তসঞ্চয় জনিত ( Passive ) কারণে হয়ে থাকে । স্রাব সহকারে এক বা উভয় ডিম্বাশয়েই মৃদ বা তীব্র বেদনা ও উত্তেজনা বা উপদাহ – এই লক্ষণে স্তন টিউমার ও স্তন ক্যান্সার সহ যেকোন রোগেই ইহা অত্যধিক উপকারী ।

বিউফো ( Bufo ) <> ঋতুস্রাব খুব শীঘ্র শীঘ্র হয়, জলের মত তরল প্রদরস্রাব, ঋতুকালে ও সঙ্গমের সময় মৃগীর মত ফিট, স্তনের গ্ল্যাণ্ড শক্ত, জরায়ুতে ও ডিম্বকোষে জ্বালা, জরায়ু গ্রীবায় ক্ষত, রক্তাক্ত দুর্গন্ধস্রাব
নিঃসরণ, স্তন-দুগ্ধের সহিত রক্তস্রাব, শিরাস্ফীতি প্রভৃতি স্ত্রীলোকদের পীড়ায় দৃষ্ট হয় ।

অন্যান্য ঔষধ সমূহ <> ব্যারাইটা – আয়োড, বেলিস পেরিনিস, আর্ণিকা, ব্রায়োনিয়া, ক্যাল্কেরিয়া – ফ্লোর, ক্যাল্কেরিয়া – আয়োড, চিমাফিলা, ক্লিমেটিস, কণ্ডিউরাঙ্গো, কেলি – সায়েনেটাম, ল্যাপিস, ফাইটোলক্কা, থুজা, ল্যাক –কেনিনাম, সিরিনাম, কার্সিনোসিন, সিরিনাম সহ আরও অন্যন্য ঔষধসমূহ ।

সতর্কতাঃ চিকিৎসকের পরামর্শ ছাড়া ওষুধ খাবেন না।

প্রভাষক.ডাঃ এস.জামান পলাশ
জামান হোমিও হল
01711-943435 //01670908547
চাঁদপুর হোমিওপ্যাথিক মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতাল
ওয়েব সাইট –www.zamanhomeo.com
ব্লগ–http://zamanhomeo.com/blog

( প্রতি মুহুর্তের চিকিৎসা বিষয়ক খবর গুলো নিয়মিত পেতে আমাদের ফেসবুক পেইজে লাইক দিন ) https://www.facebook.com/ZamanHomeoHall

No comments স্তন ( Breast )- এর পীড়া ও তার হোমিওপ্যাথিক চিকিৎসা !

মন্তব্য করুণ

Chandpur News On Facebook
দিন পঞ্জিকা
November 2017
S M T W T F S
« Oct    
 1234
567891011
12131415161718
19202122232425
2627282930  
বিশেষ ঘোষণা

চাঁদপুর জেলার ইতিহাস-ঐতিহ্য,জ্ঞানী ব্যাক্তিত্ব,সাহিত্য নিয়ে আপনার মুল্যবান লেখা জমা দিয়ে আমাদের জেলার ইতিহাস-ঐতিহ্যকে সমৃদ্ধ করে তুলুন ।আপনাদের মূল্যবান লেখা দিয়ে আমরা গড়ে তুলব আমাদের প্রিয় চাঁদপুরকে নিয়ে একটি ব্লগ ।আপনার মূল্যবান লেখাটি আমাদের ই-মেইল করুন,নিম্নোক্ত ঠিকানায় ।
E-mail: chandpurnews99@gmail.com