শাহরাস্তির শোরসাক, পানিওয়ালা ও উঘারিয়া সড়কে যান চলাচলে চরম দুর্ভোগ প্রতিনিয়ত হচ্ছে দুর্ঘটনা

প্রতিনিধি ঳- শাহরাস্তি উপজেলার একটি গুরুত্বপূর্ণ সড়ক শাহরাস্তি গেইট দোয়াভাঙ্গা, পানিওয়ালা ভায়া শোরসাক ও কালীবাড়ি হতে উঘারিয়া ভায়া সূচিপাড়া সড়ক। এ সড়ক দিয়ে উপজেলা দক্ষিণাঞ্চলের জনগণ ও লক্ষ্মীপুর জেলার রামগঞ্জ-নোয়াখালী-চাটখিল উপজেলার বহু মানুষ চলাচল করে। বর্তমানে এ সড়কের ছিখটিয়া, শোরসাক, রাগৈ, মৌলবি সাহেবের দজ্জা, লোটরা বাজারসহ পুরো সড়ক হুমকির মুখে পড়ছে। যেমন- খাল, পুকুর ও বড়-বড় গর্ত বিলীন হওয়ার উপক্রম। সরেজমিনে দেখা যায়, সড়কটির বিভিন্ন স্থানে ভাঙ্গতে শুরু করেছে। জীবনের ঝুঁকি নিয়ে যানবাহন চলাচল করে। খানাখন্দে ভরা এ সড়কটি অতিবৃষ্টির কারণে বড়-বড় গর্তে পানি জমে অচল হয়ে পড়ছে। দূর-দূরান্ত থেকে আসা ঘরমুখী মানুষের চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। ক্ষতিগ্রস্ত সড়কটি ঘুরে দেখা যায়, ছিখটিয়া ব্রিজ সংলগ্ন, রাউত বাড়ি সংলগ্ন, শোরসাক বাজার, রাগৈ, লোটরা বাজার সহ পুরো সড়কে খালে পরিণত। অপরদিককে দোয়াভাঙ্গা থেকে সূচিপাড়া উঘারিয়া সড়কের উপজেলার দক্ষিনে দেলোয়ার মিয়াজীর ব্রিক ফিল্ড সংলগ্ন, সূচিপাড়া পাটোয়ারি বাড়ি, সূচিপাড়া বাজার, সূচিপাড়া ডিগ্রি কলেজ সংলগ্ন, নুনিয়া মাদ্রাসা, উঘারিয়া বাজার হতে নরিংপুর বাজার পর্যন্ত সড়কটির বেহাল দশা হয়ে পড়েছে। সড়কটি অতিদ্রুত সংস্কারের ব্যবস্থা নেয়া নাহলে যান চলাচল বন্ধ হয়ে যাওয়ার আশঙ্কা রয়েছে। বেশ কিছু স্থানে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে যাতায়াত করছে যানবাহন। যে কোনো সময় বড় ধরনের দুর্ঘটনার শিকার হতে পারে। কালীবাড়ি হতে পানিওয়ালা পুরো সড়কটিতে যাতায়াত অনুপযোগী হয়ে পড়েছে। এ ছাড়াও শাহ্রাস্তি গেইট দোয়াভাঙ্গা হতে সূচিপাড়া-উগারিয়া সড়কটিও ঝঁকিপূর্ণ হয়ে পড়েছে। ওই সড়কটি দিয়ে দক্ষিন অঞ্চলসহ নোয়াখালী-চাটখিলের লোকজন ওই সড়ক দিয়ে যাতায়েত করে। সড়কটির অবস্থা বেহাল দশা হয়ে পড়েছে। সাধারন জনগন ও যানবাহন নিয়ে সড়কটিতে যাতায়াতের অনুপোযোগী হয়ে পড়েছে। সরজমিনে গিয়ে দেখা যায় ইতিমধ্যে কয়েকটি যানবাহন সড়কটিতে গভীর গর্ত থাকায় যানবাহন উপড়ে পড়ে যায় এবং ঘন্টার পর ঘন্টা যান চলাচল বন্ধ থাকে। এতে করে সাধারন যাত্রীগণ ও অন্যান্য যানবাহনসহ চরম ভোগান্তি পোয়াতে হচ্ছে এবং বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীদের আসা-যাওয়া ও ব্যঘাত ঘটছে। এ বিষয়ে সিএনজি, স্কুটার চালকদের সাথে কথা হলে তারা জানায়, প্রতিদিন দোয়াভাঙ্গা থেকে পানিওয়ালা ও কালীবাড়ি থেকে উঘারিয়া যেতে প্রায় ৩/৪ ঘন্টা সময় লাগে রাস্তা পাড়ি দিতে। রাস্তার অবস্থা খারাপ থাকার কারণে যানবাহন ও যাত্রীদের চলাচল করতে প্রতিমুহূর্তে আতঙ্কে থাকতে হয়। এলাকাবাসীর দাবি, দীর্ঘমেয়াদে পরিকল্পিতভাবে কাজ করে এ সড়কটির ঝুঁকি এড়াতে কর্তৃপক্ষকে জরুরি ভিত্তিতে পদক্ষেপ গ্রহণ করার জন্যে ভুক্তভোগী মানুষজন অনুরোধ জানিয়েছেন।