রজনীগন্ধা মার্কেটে ‘আর ডি.পি ফাইন্যান্স এন্ড ইনভেস্টমেন্ট এমসি এস লিঃ উধাও হয়ে যেতে পারে মার্কেটে ‘আর ডি.পি ফাইন্যান্স এন্ড ইনভেস্টমেন্ট এমসি এস লিঃ উধাও হয়ে যেতে পারে ।

এম.সাখাওয়াত হোসেন মিথুন
সরকারের অনুমোদন না নিয়েই হাজীগঞ্জ ৪৯ তম অফিস উদ্বোধন করতে যাচ্ছে আরডিপি ফাইন্যান্স এন্ড ইনভেস্টমেন্ট এমসিএস লিমিটেড। গত ছয়মাস পূর্বে সমবায় মন্ত্রণালয়ের অনুমোদন না পাওয়ায় কর্তৃপক্ষ হাইকোর্টের দারস্ত হয়। মামলা চলাকালীন সময়ে দেশের কোথাও শাখা না খোলার নীতিমালা থাকলে ভঙ্গ করেছে কোম্পানীর কর্তৃপÿ। এটি যে কোন মূহূর্তে উধাও হয়ে বিপাকে ফেলবে দু’শতাধিক গ্রাহকদের। হাজীগঞ্জে এর আগে একাধিক ভূয়া কোম্পানীর ধাবায় পড়ে জর্জরিত হয়েছে। দারিদ্র বিমোচন, ভিষণ ২০২১ সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গড়ার লÿ্যে মহামান্য হাইকোর্টকে বৃদ্ধাঙ্গলী দেখিয়ে আরডিপি ফাইন্যান্সের নতুন শাখা এখন হাজীগঞ্জে। বর্তমানে শাখা অনুমোদনের জন্য হাইকোর্টে সমবায় মন্ত্রণালয়ের বিরম্নদ্ধে প্রতিষ্ঠানের মালিক পÿ একটি রীট আবেদন করে। মামলাটি বিচারাধীন রয়েছে। তবে হাজীগঞ্জ শাখার ইনর্চাজ মোহাম্মদ আশ্রারাফুজ্জামান জানান, আমাদের শাখা খোলার জন্য হাইকোর্টে রায় দিয়েছে। এদিকে উপজেলা সমবায় কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, ওই সমবায়ের শাখা খোলার অনুমোদন নেই। যে রায়ের কপিটি আমাদের কাছে দিয়েছে সেটি রায়ের কপি নয়, আরজির কপি।শাখা খোলার অনুমোদন পত্র প্রসঙ্গে আশ্রাফুজ্জামান একটি ভূয়া কাগজ দেখিয়ে বলেন, এটিই হাইকোর্টের রায়ের কপি।জানা গেছে, ছয় মাস পূর্বে হাজীগঞ্জ বাজারের রজনীগন্ধা মাকের্টের তৃতীয় তলায় একটি ফট ভাড়া নিয়ে সাধারণ মানুষকে ধোকা দিয়ে আসছে। যে কোন মূহূর্তে উধাও হতে পারে আর ডিপি ফাইন্যান্স এন্ড এম সি এস লি:।হাজীগঞ্জ সমবায় কর্মকর্তা আবদুর রহমান জানান, তাদের কাছে ছাড়পত্র নেই। তারা কোর্টের আবেদনের আরজির কপি দিয়ে শাখা অফিস খুলে কার্যক্রম চালাচ্ছে। জেলা সমবায় কর্মকর্তা মো: আবু ইউছুফ মিয়া বলেন, আমার সাথে যোগাযোগ না করেই অফিসে কিছু কাগজ পত্র জমা দিয়েছে। তবে ওই কাগজ পত্র যথার্থ নয়।