ব্যাংকের কোটি টাকা ছিনতাইয়ে জড়িত ‘ছাত্রলীগ ক্যাডার’! গ্রেফতার

sintai_logo-2520130726230106_2738
অণলাইন ডেস্কঃ-
সিলেটে ব্র্যাক ব্যাংকের এক কোটি টাকা ছিনতাইয়ের ঘটনায় জড়িত সন্দেহে হাসানুজ্জামান ইস্পাহানি (২৮) নামের এক যুবককে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। সুনামগঞ্জ শহরের আরপিননগর এলাকা থেকে গত রোববার রাতে তাঁকে গ্রেপ্তার করা হয়। তিনি এলাকায় ‘ছাত্রলীগের ক্যাডার’ হিসেবে পরিচিত।

পুলিশ জানায়, ছিনতাইয়ের ঘটনার পরপরই পুলিশের একাধিক দল টাকা উদ্ধার ও জড়িত ব্যক্তিদের গ্রেপ্তারে অভিযান শুরু করে। ছিনতাইকারীদের পালানোর পথ অনুসরণ করে রাত দুইটার দিকে সুনামগঞ্জ শহরের আরপিননগরে ইস্পাহানির বাসা ঘিরে ফেলে সুনামগঞ্জ সদর থানা ও সিলেটের দক্ষিণ সুরমা থানা-পুলিশের একটি যৌথ দল। এ সময় ইস্পাহানি পুলিশের ওপর আক্রমণ করে পালানোর চেষ্টা করেন। তখন পুলিশ তাঁকে লক্ষ্য করে শটগানের গুলি ছোড়ে। পরে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় তাঁকে আটক করা হয়।

দক্ষিণ সুরমা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রঞ্জন সামন্ত জানান, রাবার বুলেটবিদ্ধ অবস্থায় রাতেই ইস্পাহানিকে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। তাঁর শরীরে অস্ত্রোপচার করে বুলেট বের করা হয়েছে।

সুনামগঞ্জ সদর থানার ওসি এনামুল হক জানান, ইস্পাহানির বিরুদ্ধে ছিনতাই ও সন্ত্রাসী হামলার অভিযোগে একাধিক মামলা রয়েছে। চিকিৎসা শেষে ব্যাংকের টাকা ছিনতাইয়ের ঘটনায় তাঁকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে।

সিলেট মহানগর পুলিশের সহকারী কমিশনার (দক্ষিণ সুরমা থানা) এন এম নাসির উদ্দিন প্রথম আলোকে বলেন, ইস্পাহানির নেতৃত্বে ছিনতাইয়ের ঘটনা ঘটেছে—প্রাথমিক তদন্তে পুলিশ এ বিষয়ে নিশ্চিত হয়েই তাঁকে আটক করেছে। জিজ্ঞাসাবাদের পর তাঁর সহযোগী ও টাকা উদ্ধারের অভিযান চালানো হবে। জানা গেছে, ইস্পাহানি ছাত্রলীগের একজন ‘ক্যাডার’ হিসেবে এলাকায় পরিচিতি। সুনামগঞ্জে মন্ত্রী বা সাংসদের যেকোনো অনুষ্ঠানে তাঁকে সব সময় দেখা যায়। ‘বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক ও সাহিত্য ফোরাম’ নামের একটি সংগঠনের সভাপতি হিসেবে শহরে আওয়ামী লীগের যেকোনো অনুষ্ঠানেও তিনি উপস্থিত থাকেন।

তবে সুনামগঞ্জ জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক রফিক আহমদ চৌধুরী দাবি করেন, ছাত্রলীগের সঙ্গে ইস্পাহানির কোনো সম্পর্ক নেই। কিন্তু তিনি স্বীকার করেন, সুনামগঞ্জে কোনো মন্ত্রী বা সাংসদের অনুষ্ঠানে ইস্পাহানিকে সব সময় দেখা যায়।

গত রোববার বেলা তিনটার দিকে সিলেট নগরের বন্দরবাজার ও দক্ষিণ সুরমায় ব্র্যাক ব্যাংকের দুটো শাখা থেকে এক কোটি টাকা সিলেটের বিশ্বনাথ শাখায় নিয়ে যাওয়া হচ্ছিল। বিশ্বনাথ শাখার সহকারী ব্যবস্থাপক গওহর আলতাব চৌধুরী কোনো নিরাপত্তাব্যবস্থা ছাড়াই একটি গাড়িতে করে ওই টাকা নিয়ে যাচ্ছিলেন। পথে ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের আতিরবাড়ির কাছে তিনটি মোটরসাইকেলে করে আসা নয়জন ছিনতাইকারী গাড়িচালক সোহেল আহমদকে ছোরা দিয়ে আঘাত করে কোটি টাকার ব্যাগ নিয়ে পালায়।

এ ঘটনায় ব্র্যাক ব্যাংক বিশ্বনাথ শাখার ব্যবস্থাপক আলী আহসান সিদ্দিকী রোববার রাতে অজ্ঞাতনামা ব্যক্তিদের আসামি করে দক্ষিণ সুরমা থানায় মামলা করেন।