বাংলাদেশ সফরে আসছে ইংল্যান্ড, জানাল ইসিবি

chandpur-sports-newsইংল্যান্ড ও ওয়েলস ক্রিকেট বোর্ড (ইসিবি) নিশ্চিত করেছে যে, ইংল্যান্ডের বাংলাদেশ সফর পরিকল্পনা মতোই এগিয়ে যাবে। বৃহস্পতিবার রাতে ক্রিকেট ওয়েবসাইট ইএসপিএন-ক্রিকইনফো এক প্রতিবেদনে এ কথা জানায়।

ফলে গুলশান হামলার পর ইংল্যান্ড ক্রিকেট দলের বাংলাদেশ সফর নিয়ে দেখা দেওয়া শঙ্কার অবসান হয়েছে।

গত ১ জুলাই গুলশানের একটি ক্যাফেতে জঙ্গি হামলায় ১৭ বিদেশিসহ ২০ জিম্মি নিহত হওয়ার পর বাংলাদেশের নিরাপত্তা পরিস্থিতি নিয়ে শঙ্কা প্রকাশ করেন ইংল্যান্ডের ওয়ানডে অধিনায়ক ওয়েন মর্গ্যান।

পরে পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করতে বাংলাদেশ ঘুরে যান ইসিবির নিরাপত্তা উপদেষ্টা রেজ ডিকাসন, ক্রিকেট পরিচালনা বিভাগের পরিচালক জন কার ও ইংল্যান্ডের পেশাদার ক্রিকেটারদের সংগঠন পিসিএর প্রধান নির্বাহী ডেভিড লেথারডেল।

তারা ইংল্যান্ডে ফিরে জানান, বাংলাদেশ সরকার যে নিরাপত্তার প্রতিশ্রুতি দিয়েছে তাতে সফর নিরাপদ হবে।

বৃহস্পতিবার রাতে ইংল্যান্ডের টেস্ট অধিনায়ক অ্যালেস্টার কুক, ওয়ানডে অধিনায়ক ওয়েন মর্গ্যানসহ ক্রিকেটারদের ঝুঁকির মূল্যায়ন ও নিরাপত্তা ব্যবস্থা সম্পর্কে ব্রিফ করেন ডিকাসন। সেখানে ইংল্যান্ড ক্রিকেটের পরিচালক অ্যান্ড্রু স্ট্রাউস, ইসিবির প্রধান নির্বাহী টম হ্যারিসনের সঙ্গে উপস্থিত ছিলেন কার ও লেথারডেলও।

সভার পর স্ট্রাউস বলেন, বাংলাদেশে ইংল্যান্ডের সফর পরিকল্পনা অনুযায়ী এগোবে।

সাবেক অধিনায়ক স্ট্রাউস জানান, খেলোয়াড় ও ম্যানেজমেন্টের নিরাপত্তা সব সময়ই সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ। তারা ঝুঁকির একটি পুঙ্খানুপুঙ্খ মূল্যায়ন পেয়েছেন। বাংলাদেশের বর্তমান পরিস্থিতি সম্পর্কেও তাদের খুব ভালো ধারণা রয়েছে। নিরাপত্তা প্রতিশ্রুতি সম্পর্কে তাদের সবকিছুই বলা হয়েছে।

তিনি আরো বলেন, আমরা একটি উন্মুক্ত আলোচনায় খেলোয়াড় ও ম্যানেজমেন্টের সঙ্গে বিস্তারিত আলোচনা করেছি। তারা প্রচুর প্রশ্ন করেছেন। গ্রীষ্মের আন্তর্জাতিক ম্যাচগুলোর পর সফরের দল ঠিক করা হবে।”

এই মুহূর্তে ইংল্যান্ড সফরে রয়েছে পাকিস্তান। টেস্ট সিরিজ শেষে এখন ওয়ানডে সিরিজে খেলছে তারা।

স্ট্রাউস জানান, তারা বাংলাদেশের পরিস্থিতি যথারীতি পর্যবেক্ষণ রাখবেন আর তা অব্যাহত থাকবে সিরিজের শেষ পর্যন্ত।

আগামী ৩০ সেপ্টেম্বর বাংলাদেশে পৌঁছাবে ইংল্যান্ড দল। সফরে তিনটি করে প্রস্তুতি ম্যাচ ও ওয়ানডে খেলবে তারা। প্রায় এক মাসের সফর শেষ হবে দুই ম্যাচের টেস্ট সিরিজ দিয়ে।

গত বছর নিরাপত্তা শঙ্কায় বাংলাদেশ সফর স্থগিত করে অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেট দল। চলতি বছর অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপেও দল পাঠায়নি তারা। তবে ১৬ দলের ওই টুর্নামেন্টে অংশ নেয় ইংল্যান্ড।