তত্ত্বাবধায়ক সরকার দাবি আদায় করে ছাড়ব-শেখ ফরিদ আহমেদ মানিক।

manikচাঁদপুর: চাঁদপুর সদর উপজেলার ইব্রাহীমপুর ইউনিয়নে ৫ অক্টোবর দিনভর তত্ত্বাবধায়ক সরকার পুনর্বহালের দাবিতে ব্যাপক গণসংযোগ ও পথসভা করেন জেলা বিএনপি সাধারণ সম্পাদক শেখ ফরিদ আহমেদ মানিক। শনিবার সকালে নদী পথে রওনা হয়ে প্রথমে ইব্রাহীমপুর ইউনিয়নের মুকন্দি গ্রামে ৪নং ওয়ার্ড বিএনপির সভাপতি মরহুম পগু খানের কবর জিয়ারত করেন এবং তার পরিবারকে আর্থিক অনুদান প্রদান করেন শেখ ফরিদ আহমেদ মানিক। সেখানে সংক্ষিপ্ত বক্তব্যে তিনি বলেন, আমি এখানে এসে ইউনিয়নের সকলের সাথে মিলিত হতে পেরে ব্যক্তিগতভাবে গর্বিত। আমরা দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার কিছু বার্তা নিয়ে আপনাদের কাছে এসেছি। ২৫ তারিখে আওয়ামী লীগের শাসনামল শেষ হবে এবং ৫ বছরে যতো চুরি ডাকাতিসহ দুর্নীতি আছে তা অবসান ঘটবে। ২৫ অক্টোবরের পরে বিএনপি দুর্বার আন্দোলনে যাবে। এমনিতেই নৌকা অটোমেটিক ফুটো হয়ে রয়েছে। ২৫ তারিখের পরে আমরা আন্দোলনের মাধ্যমে তত্ত্বাবধায়ক সরকার দাবি আদায় করে ছাড়ব ইনশাআল্লাহ। এখানে বিএনপি, যুবদল ও ছাত্রদল উপস্থিত রয়েছেন এ বার্তা সকলের কাছে পৌঁছে দেবেন। তার সাথে সাথে আমরা নির্বাচনের জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছি। তত্ত্বাবধায়কের দাবি আদায় হবেই তাতে কোনো সন্দেহ নেই। আমাদের কাছে তথ্য রয়েছে এ ইউনিয়নে বিএনপি নেতা-কর্মীদের উপর আওয়ামী লীগের লোকজন কিভাবে অত্যাচার করেছে তাদেরকে ছাড় দেয়া হবে না। আমরা আইনের মাধ্যমে তা মোকাবেলা করবো। আমাদের এ আন্দোলনে এ ইউনিয়ন থেকে আপনারা সকলে আমাদেরকে সহযোগিতা করবেন। আমার বিশ্বাস চাঁদপুরে বিএনপি, যুবদল, ছাত্রদলের যে শক্তি রয়েছে তা দিয়ে এ ক্ষমতালোভী সরকারের মোকাবেলা করতে পারবো। তত্ত্বাবধায়ক সরকার দাবি যতক্ষণ আদায় না হবে বিএনপি নির্বাচনে না যায় তাহলে সকলে মিলে লক্ষ্য রাখবেন ভোট কেন্দ্রে কেউ যেনো যেতে না পারে। পৃথিবীতে এমন কোনো নজির নেই জালিম সরকার বেশি দিন টিকে থাকতে পেরেছে। আমাদের আর্দশ জিয়াউর রহমান। আমাদের প্রতীক ধানের শীষ। নৌকা তাদের কাজের মধ্য দিয়েই ফুটো হয়ে গেছে। দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া আন্দোলনের ডাক দিলে তখন প্রত্যকটি এলাকায় তা যথাযথভাবে পালন করতে হবে। তাই চলমান সকল দ্বিধা ভেদাভেদ ভুলে আগামী দিনে একদফা দাবি সামনে রেখে কঠোর আন্দোলন সংগ্রামে নেতা-কর্মীদের রাজপথে থাকার অঙ্গিকার করতে হবে।
এসময় উপস্থিত ছিলেন চাঁদপুর সদর থানার বিএনপি সভাপতি দেওয়ান সফিকুজ্জামান, সাধারণ সম্পাদক খলিলুর রহমান গাজী, পৌর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আক্তার হোসেন মাঝি, জেলা যুবদলের সভাপতি শাহাজালাল মিশন, সাধারণ সম্পাদক আফজাল হোসেন, সহ-সভাপতি হুমায়ন কবির হুমা, যুগ্ম সম্পাদক সালাউদ্দিন সেলিম, সাংগঠনিক সম্পাদক মোফাজ্জল হোসেন চান্দু, জেলা ছাত্রদলের সভাপতি মানিকুর রহমান মানিক, সাংগঠনিক সম্পাদক ফয়সাল আহমেদ বাহার, শহর যুবদলের যুগ্ম আহ্বায়ক দ্বীন মোঃ জিল্লু, ইউনিয়ন বিএনপি সভাপতি চাঁন মিয়া চকিদার, সাধারণ সম্পাদক মিজানুর রহমান খান, সহ-সভাপতি সফিক আখন্দ, ইউনিয়ন যুবদলের আহ্বায়ক বিল্লাল গাজী, যুগ্ম আহ্বায়ক বাবু খান, আল-আমিন বরকন্দাজ, বাদশা মিয়া, টাইগার বিল্লাল, জাহাঙ্গীর মাঝি, আনোয়ারসহ অন্যান্য নেতা-কর্মীরা।
পরে ইব্রাহীমপুর ইউনিয়নে টেকেরহার্ট ৭, ৮ ও ৯নং ওয়ার্ড বিএনপির আঞ্চলিক এবং আলুরবাজার ফেরিঘাটে ইউনিয়ন কার্যালয়ে নেতা-কর্মীদের উদ্দেশে তিনি বক্তব্য রাখেন।