চাঁদপুর হকার্স মার্কেটে স্যাফায়ার ইলেক্ট্রনিক্সে যুবককে ছুড়িকাঘাত

শাহরিয়ার খাঁন কৌশিক ॥ চাঁদপুর আল-আমিন ছাত্রী শাখার কলেজ ছাত্রীকে তুলে নিয়ে নির্যাতন করার হুমকীর প্রতিবাদ করায় হকার্স মার্কেটে স্যাফায়ার ইলেক্ট্রনিকক্সে এক যুবককে ছুড়িকাঘাত করেছে। স্যাফায়ার ইলেক্ট্রনিকক্সের মালিক মানিক খাঁনের সামনে তার বখাটে নেশাগস্ত ছেলে কাব্য খাঁন(১৯) কলেজ ছাত্রীর মামতো ভাই রাকিব মিজি(২৮)কে ছুড়ি দিয়ে বুকে ও হাতে ছুড়িকাঘাত করে।
এসময় সে গুরুত্তর আহত হয়ে মাটিতে লুটি পরলে রক্তাক্ত অবস্থায় স্থানীয় দোকানীরা উদ্ধার করে চাঁদপুর সরকারি জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করায়।
ঘটনাটি ঘটেছে বুধবার রাত নয় টায় হকার্স মার্কেটে ১৬৮ নাম্বার দোকান স্যাফায়ার ইলেক্ট্রনিকক্সের ভিতরে। আহত রাকিব মিজি ২নং আশিকাঠী ইউনিয়নের উত্তর লালদিয়া শাহ-জাহান মিজির ছেলে।
আহতের চাচা খায়ের জানায় , ব্যাংক কলোনীর মৃত শহাজাহান খাঁনের মেয়ে আল-আমিন ছাত্রী শাখার কলেজ ছাত্রী শাহনাজ আক্তার(১৬)কে কলেজে আসা যাওয়ার পথে ঐ এলাকার বাসিন্ধা স্যাফায়ার ইলেক্ট্রনিকক্সের মানিকের ছেলে কাব্য উতপ্ত করতো। বখাটে কাব্য কলেজ ছাত্রীকে প্রেমের প্রস্তাব দিলে সে তার প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় খারাপ ব্যবহার শুরু করে। এই ঘটনায় এতিম বাবা হারা কলেজ ছাত্রীর মামা ও পরিবারের লোকজন বখাটের বাবা মানিক খাঁনকে জানালেও সে এর কোন ব্যবস্থা নেয়নি। বখাটে কাব্য আরো ক্ষীপ্ত হয়ে কলেজ ছাত্রী শাহনাজ আক্তারের বাসার জালানা ভাংচুর করে। গত মঙ্গলবার রাতে মানিকের ছেলে কাব্য তার মোবাইল থেকে ফোন করে কলেজ ছাত্রী শাহনাজ আক্তারকে তুলে নিয়ে নির্যাতন করার হুমকী দেয়। এই বিষয়ে শাহনাজ আক্তারের মামতো ভাই রাকিব হকার্স মার্কেটে স্যাফায়ার ইলেক্ট্রনিকক্সের মালিক মানিককে তার ছেলের ঘটনাটি জানায়। এসময় মানিক ক্ষীপ্ত হয়ে উঠলে তার বখাটে ছেলে কাব্য বাবার সামনে ধারালো ছুড়ি দিয়ে রাকিবকে ছুড়িকাঘাত করে। এসময় ছেলের এই ধরনের সন্ত্রাসী কান্ড দেখে বাবা হতভম্ভ হয়ে যায়। পরে স্থানীয় দোকানীরা তাকে উদ্ধার করে চাঁদপুর সরকারি জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে আসে।
খবর পেয়ে চাঁদপুর মডেল থানার এসআই হাবিব হাসপাতালে গিয়ে আহত ও তার পরিবারের সাথে কথা বলেন।

এই ঘটনায় আহত রাকিবের চাচা বাদি হয়ে চাঁদপুর মডেল থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেন।