চাঁদপুর মেঘনায় চোরাকারবারীদের দূরুত্ব ॥ কোটি টাকার চালান পাচার

ষ্টাফ রিপোর্টার ॥ চাঁদপুরে মেঘনা নদীতে চোরাকারবারীদের দূরুত্ব দিন দিন বেরেই চলছে। প্রতিদিন রাতে মেঘনা নদীর বিভিন্ন স্পটে লাইটার জাহাজ থেকে পেট্রোল,অকটেন,ডিজেল,চিনি সহ কোটি কোটি টাকার বিভিন্ন মালামাল অবৈধ পন্থায় পাচার করছে বেশ কয়েকটি চক্র । মতলব মোহনপুর এলাকায় এ যাবতকালে বেশ কিছু চালান পাচার করেছে এ চক্রটি। গত বৃহস্পতিবার মতলব (উঃ) মোহনপুর এলাকায় মেঘনা নদীতে চট্টগ্রাম থেকে ছেড়ে আসা এমভি মনোয়ারা লাইটার জাহাজ থেকে ২৮ ব্যারেল ডিজেল পাচার করে সঙ্গবদ্ধ চক্রটি।

একটি বিশ্বস্ত সূত্রে জানা যায়, পাচার করা ২৮ ব্যারেল ডিজেল মতলব উত্তরের ুমোহনপুর এলাকার মনির খালাসি নামে এক ব্যাক্তির মারফতে মালগুলো বিক্রি হয়। চোরাকারবারীর বেশ কয়েকজন হোতা চাঁদপুর শহরের যমুনা রোড,ট্রাকঘাট,গাজী সড়ক ও পুরান বাজারে অবস্থান করে। মূলত তাদের এই চক্রটি বেশ কয়েক বছর যাবত মেঘনা নদীতে চোরাইভাবে বিভিন্ন মালামাল পাচার করে আসছে। পাচার করা মালামালগুলো লাইটার জাহাহ থেকে নামিয়ে নদী থেকেই শরীয়তপুর,ফরিদপুর ও মাওয়া বিভিন্ন মোকামে বিক্রি করে । চাঁদপুরের কোষ্টগার্ড বেশ কয়েকবার তাদেরকে হানা দিয়ে ডিজেল,পেট্রোল,চিনি ও সাড় জব্দ করে। গত কিছুদিন পূর্বে পুরানবাজার ১নং ঘাট থেকে ১০ ব্যারেল পেট্রোল সহ একটি নৌকা জব্দ করে কোষ্টঘাট। কোষ্টঘাট মালগুলো জব্দ করে কাস্টম এর কাছে হস্তান্তর করে। চোরাকারবারিরা এখন মেঘনা নদীর মোহনপুর এলাকায় দিনে দুপুরে বিভিন্ন জাহাজ থেকে মালামালগুলো পাচার করে মতলব উত্তর দিয়ে উঠায় । পরে সেগুলো সিন্ডিগেটের মাধমে সড়ক পথে পাচার করে । কোষ্টঘাট পাচার হওয়া মালামাল নদী থেকে জব্দ করলেও চোরাকারবারীদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যাবস্থা গ্রহন করায় তারা এখন সক্রীয় হয়ে উঠেছে। তারা নতুন রুট হিসাবে মতলব উত্তর মোহনপুরকে বেছে নিয়ে সেখানে অবস্থান করে নদীপথে কোটি কোটি মালামাল পাচার করছে। পরবর্তী প্রতিবেদনে নদীপথে সকল চোরাকারবারীদের নাম প্রকাশ করা হবে।