চাঁদপুরে উত্ত্যক্ত ও যৌন পিড়নের অভিযোগে এক যুবকের ৭ বছর কারাদন্ড

mail.google.com
মিজান লিটন: উত্ত্যক্ত ও যৌন পিড়নের অভিযোগ প্রমানিত হওয়ায় মো.ইব্রাহিম (৩০) নামের এক যুবককে ৭ বছরের কারাদন্ড ও ২০ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে আরো এক বছর কারাদন্ডের আদেশ দেয়া হয়েছে। সোমবার চাঁদপুরের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল-১ এর বিচারক মো.শফিকুল করিম যৌন পিড়ন ২০০৩ এর ১০ ধারায় দোষী সাব্যস্ত হওয়ায় আসামীর বিরুদ্ধে এ রায় দেন। বর্তমানে আসামী জেল হাজতে রয়েছে।
বাদী পক্ষের আইনজীবী নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আাদলতের বিশেষ পিপি অ্যাড. হাবিবুল ইসলাম তালুকদার মামলার সুত্র থেকে জানান, ফরিদগঞ্জ উপজেলার পূর্ব বড়ালী গ্রামের আবুল হোসেনের ছেলে মো. ইব্রাহিম রূপসা আহমদিয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষক মো.লোকমান হোসেন মাস্টারের কলেজ পড়–য়া মেয়ে আমেনা আক্তারকে একাধিকবার কলেজ যাওয়ার সময় উত্যক্ত করে। সর্বশেষ ২০০৯ এর ১ জুলাই প্রকাশ্যে যৌন পিড়নের চেস্টা চালায়। এ সময় স্থানীয় লোকজনের সহযোগিতায় মেয়েটি রক্ষা পায়। মেয়েটির মাধ্যামে তাৎক্ষনিক চাঁদপুরের পুলিশ সুপার মো. আমির জাফর এ খবর পেয়ে আসামী ইব্রাহিমকে ফরিদগঞ্জ থানা পুলিশের সহায়তায় গ্রেফতার করে। এ ব্যাপারে ফরিদগঞ্জ থানায় ২০০৯ এর ১ জুলাই তার পিতা লোকমান মাস্টার বাদি হয়ে মামলা করলে বিজ্ঞ বিচারক এ রায় দেন (ফরিদগঞ্জ থানায় মামলা নং-১, জিআর ১০৮)। এ মামলাটি পরিচালনায় সহায়তা করেন অ্যাড.জসিম উদ্দিন ভুইয়া।
এদিকে ফরিদগঞ্জ থানা সুত্রে জানা যায়, সাজাপ্রাপ্ত এই আসামীর বিরুদ্ধে আরো একটি ধর্ষণের চেস্টা মামলা রয়েছে। মামলা নং ৩১।