কালের ক্রন্দন :গণতন্ত্র মানে কি সাধারণ মানুষ খুন করা, নাকি এক দলীয় রাজনীতি কায়েম করা ?

onlinechandpurnewsমোঃ মাঈনুদ্দিন ভূঁইয়া রনি: জীবন মানে যুদ্ধ, যুদ্ধ মানে জয় অথবা পরাজয়। যুদ্ধে জয় হলে মুক্তিযুদ্ধা আর পরাজয় হলে রাজাকার। একবার কি আমরা ভেবে দেখতে পারি না। ফুল ফুটে আবার ঝড়ে পড়ে কেন? যে জাতি যত স্বাধীন সে জাতি তত পরাধীন। কেন? গণতন্ত্রের জন্য পরাধীন। গণতন্ত্র মানুষ কে ক্ষমতার লোভ দেখায়, ক্ষমতার লোভে একজন মানুষ হয়ে আরেক জন মানুষ কে খুন করতে দ্বিধা করে না। জীবনে যদি কোন মানুষ একবার কষ্ট পেয়ে যায়, তাহলে সে মানুষ কষ্ট গুলো বুলতে পারে না। আবার কোন মানুষ যদি বার বার কষ্ট পায় তাহলে সে কষ্টে পাগল হয়ে যায়, তখন সে কোন খারাপ কাজ করতে সময় লাগে না। একজন মানুষ তিন টা ধাপে বেড়ে উঠে শিশু, তরুণ, বৃদ্ধা। একজন তরুণ সে তার তরুণ বয়সে অনেক কাজ করে । কোনটা ভালো, আর কোনটা খারাপ সেইটা বুঝতে চায় না। যখন বাংলাদেশে মুক্তিযুদ্ধ হয় তখন ৮০% তরুণ ছিল মুক্তিযুদ্ধা। একজন তরুণ যখন দেশের জন্য কাজ করে তখন সে মুক্তিযুদ্ধা। আর যখন একজন তরুণ দেশের বিরুদ্ধে বা দেশকে ধ্বংস করার জন্য কাজ করে তখন সে হয়ে যায় রাজাকার। জীবন রক্ষা করার জন্য যদি কেও দেশের বিরুদ্ধে কাজ করে তাহলে কি সে রাজাকার?? জীবন হল আল্লাহর দান, জীবন রক্ষা করা ফরজের মধ্যে পরে। একজন মুক্তিযুদ্ধা যে ৯মাস যুদ্ধ করার পরে ঘরে ফিরে গেলো । ঘরে ফিরে যাবার পর সে কোটি টাকার মালিক হল কি করে? এখনো বাংলাদেশে অনেক মুক্তিযুদ্ধা আছে রিকসা চালিয়ে জীবন যাপন করে। তারা চাইলে কি কোটি প্রতি হতে পারতো না কিন্তু তাদের লোভ ছিল না। আমি মুক্তিযুদ্ধ দেখি নাই কিন্তু মুক্তিযুদ্ধের কথা শুনেছি। আমি বঙ্গবন্ধু কে দেখি নাই কিন্তু বঙ্গবন্ধুর কথা শুনেছি। আমি মাওলানা ভাসানী কে দেখি নাই কিন্তু ভাসানীর কথা এখন আর শিশু তরুণদের বইতে তাদের নাম পাওয়া যায় না। আমি জিয়াউর রহমান কে দেখি নাই কিন্তু এখন আর শিশু, তরুণদের বইতে তাদের নাম পাওয়া যায় না। এই কথা গুলো আমার না, এক মুক্তিযুদ্ধোর কথা। একজন মানুষের জীবনে জয় পরাজয় থাকতেই পারে। যে মানুষের জীবনে জয় পরাজয় নাই সে মানুষ না। বতমানে বাংলাদেশের যে অবস্তা এতে করে আমার দেশের মানুষ কি সুখে আছে? আমি একজন সাধারন মানুষ হয়ে বলবো, নাই। তাহলে বাংলাদেশের আগামী দিনের ভবিষ্যৎ কি ? বর্তমান বাংলাদেশের যে পরিস্থিতি আমার মনে হয় যে ১৯৭২ থেকে ১৯৭৫ সালের দিকে যে বর্বর কাহিনী হয়েছে না কি ১৯৯৪ সালের বাংলাদেশে যে লুটপাট, নিযাতন ও দিভিক্ষ হয়েছে তা কি আবার পূনর আবিতি হতে যাছে? গণতন্ত্র মানে কি সাধারণ মানুষ খুন করা, না কি একদলীয় রাজনীতি করা? একজন মানুষ বল যে শাহবাগে যারা আন্দালন করে তারা নাকি তরুণ, আমি ও বলি তারা ও তরুণ। তাহলে কি সারা বাংলাদেশে যারা আছেন তারা কি তরুণ না। তরুণ হলে কি আন্দোলন করা যায়, তরুণ না হলে কি আন্দোলন করা যায় না। একজন সাধারণ মানুষের প্রশ্ন বাংলাদেশকে স্বাধীন করার জন্য কি তরুণরা মুক্তিযুদ্ধ করেছে, আর কেও করে নাই?