কচুয়ায় ভয়াবহ অগ্নিকান্ডে ২০টি বসতঘর পুড়ে ছাই

কচুয়ায় ভয়াবহ অগ্নিকান্ডে ২০টি বসতঘর পুড়ে ছাই হয়ে গেছে। শনিবার দিবাগত গভীর রাতে উপজেলার দক্ষিণ কচুয়া ইউনিয়নের আকানিয়া আব্বাস আলী প্রধানীয়া বাড়িতে ভয়াবহ এ অগি্নকা- সংঘটিত হয়। অগ্নিকান্ডে ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ প্রায় অর্ধ কোটি টাকা হবে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের লোকজন দ্রুত ঘটনাস্থলে ছুটে গিয়ে প্রায় ২ ঘণ্টাব্যাপী অভিযান চালিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। ততক্ষণে ২০টি বসতঘরের সম্পূর্ণ মালামাল ও নগদ অর্থসহ আসবাবপত্র পুড়ে ছাই হয়ে যায়। ক্ষতিগ্রস্তদের ধারণা, গ্যাসসিলিন্ডার বিস্ফোরণে এ অগ্নিকান্ডের ঘটনা ঘটতে পারে।

কচুয়া উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান শাহজাহান শিশির, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নীলিমা আফরোজ, পৌর মেয়র নাজমুল আলম স্বপন, উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা আনোয়ার হোসেন, উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা আশিকুর রহমান ও সদর ইউপি চেয়ারম্যান জসিম উদ্দিন লিটন অগ্নিকান্ডের ক্ষয়ক্ষতি পরিদর্শন করেন।

উপজেলা প্রশাসনের ত্রাণতহবিল হতে ক্ষতিগ্রস্ত প্রতিটি পরিবারকে ৩০ কেজি চাউল, ২ ব্যান্ডেল টিন, নগদ ৬ হাজার টাকা ও প্রতিটি পরিবারের সকল সদস্যকে ১টি করে কম্বল দেয়া হয়। পৌর মেয়র নাজমুল আলম স্বপন ও ইউপি চেয়ারম্যান জসিম উদ্দিন লিটনের পক্ষ থেকে শুকনো খাবার দেয়া হয়।

এছাড়াও উপজেলা পরিষদ ও প্রশাসনের পক্ষ থেকে ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের স্কুল কলেজে ও মাদ্রাসায় পড়ুয়া শিক্ষার্থীদের বই-পুস্তকসহ শিক্ষার উপকরণ সামগ্রী প্রদানের আশ্বাস প্রদান করা হয়েছে। অগ্নিকান্ডের খবর পাওয়ার সাথে সাথে কচুয়া থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে ছুটে গিয়ে নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে সক্রিয় ভূমিকা পালন করেন। সহায়-সম্বল হারিয়ে বর্তমানে ক্ষতিগ্রস্তরা খোলা আকাশের নিচে মানবেতর জীবনযাপন করছেন।