কচুয়ায় প্রকাশ্যে বিক্রি হচ্ছে নিষিদ্ধ পিরানহা মাছ

কচুয়া প্রতিনিধি-2_8614
কচুয়ার প্রতিটি হাট বাজারে প্রকাশ্যে বিক্রি হচ্ছে সরকার ঘোষিত নিষিদ্ধ মানুষ খেকো পিরানহা মাছ। উপজেলার ছোট-বড় প্রতিটি বাজারেই প্রতিনিয়ত এক শ্রেণীর অসাধু ব্যবসায়ী রূপচাঁদা মাছ বলে প্রচার চালিয়ে সাধারণ মানুষকে প্রতারিত করে এমাছ দেধারছে বিক্রি করে আসছে। খোদ পৌর কচুয়া বাজারে প্রশাসনের নাকের ডগায় মানুষ খেকো নিষিদ্ধ এ পিরানহা মাছ বেচা বিক্রি চলছে।
সরজমিনে গত মঙ্গলবার সন্ধ্যায় রহিমাগর উত্তর বাজার সামাদ সুপার মার্কেটের সামনে মোমের আলোয় এক অসাধু বিক্রেতা তাজা রূপচাঁদার নাম করে ১৪০ থেকে ১৫০ টাকা কেজি ধরে পিরানহা মাছ বিক্রি করে আসছে। পিনারহা মাছ রহিমা নগর এলাকায় চাষাবাদ কিংবা কোথা থেকে উৎপাদন করা হয় এমন প্রশ্নের জবাবে ওই ব্যবসায়ী জানান, রহিমানগর বাজারস্থ মধুর মাছের আড়ৎ থেকে এ মাছগুলো ক্রয় করা হয়। তবে রহিমানগর এলাকায় এ মাছ চাষাবাদ হওয়ার বিষয়টি তিনি অস্বীকার করেন।
জানা গেছে, কচুয়ার পালগীরি, পাথৈর, সিংআড্ডা, বাইছাড়া, বায়েক ও মিয়ার বাজারসহ বেশকিছু গ্রামের পুকুরে সরকার ঘোষিত নিষিদ্ধ পিরানহা মাছ চাষাবাদ হয়ে আসছে। অল্প পুঁজি ও তারাতারি এ মাছ বেড়ে উঠায় পুকুর মালিক ব্যবসায়ীরা গরীব মানুষদের সাথে প্রতারণা করে পিরানহা মাছ চাষাবাদ করে আসছে। এদিকে কচুয়ার প্রতিটি বাজারে পিরানহা মাছ বিক্রি ও স্থানীয়ভাবে চাষাবাদ কার্যক্রম বন্ধ করতে প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেছে ভুক্তভোগী এলাকাবাসী। –