অনলাইন পত্রিকার জন্যে নীতিমালা জরুরি: প্রধানমন্ত্রী

chandpur news chandpur bangladeshবুধবার সকালে প্রধানমন্ত্রী কার্যালয়ের শাপলা হলে ‘অসুস্থ, অস্বচ্ছল ও দুর্ঘটনায় আহত সাংবাদিক এবং নিহত সাংবাদিকদের পরিবারের সদস্যদের মধ্যে সহায়তা ও অনুদানে’র চেক বিতরণ করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

এসময় প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, অনলাইন পত্রিকার জন্যে নীতিমালা করা জরুরি। ইতোমধ্যে আমরা এবিষয়ে কাজ শুরু করেছি। অনলাইন পত্রিকা ব্যাপকভাবে বের হচ্ছে। তবে এর কোনো নীতিমালা নেই। সবাইকে একটা নীতিমালায় আসতে হবে।

কেউ যাতে অশ্লীলতা ছড়াতে না পারে সে বিষয়টিও খেয়াল রাখতে হবে মন্তব্য করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‍সাংবাদিকদের পেশাগত উন্নয়নে জাতীয় গণমাধ্যম ইনস্টিটিউটে বিভিন্ন প্রশিক্ষণ দেওয়া হচ্ছে। আমরা চাই- আমাদের দেশে বস্তুনিষ্ঠ সাংবাদিকতা চর্চা হোক। সমালোচনা গঠনম‍ূলক হতে হবে, শিক্ষণীয় হতে হবে।

এসময় সমালোচনা যেন গঠনমূলক হয় সে বিষয়ে লক্ষ্য রাখারও পরামর্শ দেন প্রধানমন্ত্রী।

প্রধানমন্ত্রী বিএনপির নতুন কমিটির সমালােচনা করে বলেন, এই কমিটিতে কারা স্থান পেয়েছে- “যেসব যুদ্ধাপরাধী, বাংলাদেশের স্বাধীনতাবিরোধী, হত্যা, ধর্ষণ, লুটপাটের সাথে জড়িত, এদেশে পাকিস্তানি হানাদার বাহিনীর সহযোগিতা করেছে, যাদের বিচার হয়েছে বাংলার মাটিতে; তাদেরই বংশধর, তাদেরই ছেলেপেলে, তাদেরকে নিয়ে যদি কোনো দল গঠন করা হয়, তাহলে সেই দল কি এই দেশের স্বাধীনতায় বিশ্বাস করে? সেই দল কি এদেশের মানুষের জন্য শান্তি আনতে পারে?”

শেখ হাসিনা বলেন, “তারা বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাস করে না, স্বাধীনতায় বিশ্বাস করে না, তারা দেশের মানুষের শান্তিতে বিশ্বাস করে না, উন্নয়নে বিশ্বাস করে না, এটা হল বাস্তবতা।” যুদ্ধাপরাধীদের বিচার বন্ধ করতে অর্থ ঢেলে বিদেশে লবিং করার অভিযোগ তুলে বিচার চলতে থাকবে বলে জানান তিনি।

সাংবাদিক কল্যাণ ট্রাস্টের আওতায় প্রথমবারের মতো ১৯৬ জন দুস্থ, অসুস্থ, দুর্ঘটনায় আহত সাংবাদিক ও নিহত সাংবাদিকদের পরিবারকে এক কোটি ৪০ লাখ টাকা অনুদান দেওয়া হলো। ২০১২ সালে সাংবাদিক সহায়তা অনুদান ও ভাতা নীতিমালা প্রণয়ন করে সরকার।